আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ দু’‌দিন আগেই তাঁর এক প্রাক্তন সহকর্মী বিজেপি–তে যোগ দিয়েছেন। এর পর থেকেই কানাঘুষো বেড়েছে। তবে কি এবার শচীন পাইলটও পা বাড়াবেন বিজেপি–তে‌!‌ এই জল্পনায় ঘি ঢেলেছেন আর এক প্রাক্তন কংগ্রেসি। বলেছেন, তাঁর সঙ্গে নাকি বিজেপি–তে আসা নিয়ে কথা হয়েছে শচীনের। এবার সেই দাবি ওড়ালেন রাজস্থানের বিধায়ক। বললেন, তাঁর সঙ্গে নয়, বোধ হয় শচীন তেণ্ডুলকারের সঙ্গে কথা হয়েছে রীতা বহুগুণা যোশীর।
২৫ বছর কংগ্রেস করার পর বিজেপি–তে যোগ দিয়েছিলেন রীতা বহুগুণা যোশী। তিনি দাবি করেন, শচীন পাইলটের সঙ্গে কথা হয়েছে তাঁর। শিগগিরই শচীন যোগ দেবেন বিজেপি–তে। এদিন সেই দাবি নস্যাৎ করে শচীন বললেন, ‘‌রীতা বহুগুণ যোশী বলেছেন, তিনি শচীনের সঙ্গে কথা বলেছেন। তিনি হয়তো শচীন তেণ্ডুলকারের সঙ্গে কথা বলেছেন। আমার সঙ্গে কথা বলার সাহস তাঁর নেই।’‌ 
গত আগস্টেই রাজস্থানের মুখ্যমন্ত্রী অশোক গেহলটের প্রকাশ্য বিরোধিতা করেন শচীন। নিজের অনুগামীদের নিয়ে বেশ কয়েক দিন হরিয়ানার এক হোটেলে গা ঢাকা দিয়ে বসেছিলেন। চেয়েছিলেন গেহলট সরকার ফেলতে। শেষমেশ সংখ্যাগরিষ্ঠ সমর্থন আদায় করতে রাজস্থানে ফেরেন তিনি। তাঁর ক্ষোভ মেটানোর প্রতিশ্রুতি দেন রাহুল, প্রিয়াঙ্কা। 
কিন্তু প্রায় এক বছর হতে চললেও শচীন পাইলটের ক্ষোভ নিরসন হয়নি। রাজস্থানের মন্ত্রিসভার সম্প্রসারণ করে তাঁর অনুগামীদের জায়গাও দেওয়া হয়নি। এই নিয়ে সোমবারই এক সর্বভারতীয় সংবাদমাধ্যমের সামনে ক্ষোভ প্রকাশ করেন একদা রাহুল ঘনিষ্ঠ এই নেতা। বলেন, ‘‌১০ মাস হয়ে গেল। আমায় বোঝানো হয়েছিল কমিটি শিগগিরই পদক্ষেপ করবে। এখনও অর্ধেক কাজই হয়েছে। অনেক ইস্যুই মেটানো হয়নি। যে সব কর্মীরা খেটেখুটে আমাদের জনাদেশ এনে দিলেন, তাঁদের কথাই শোনা হচ্ছে না।’‌ 
এই বক্তব্যের পরেই তাই রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞরা বলছেন, তাঁর দলত্যাগ সময়ের অপেক্ষা। দর কষাকষি মিটলেই চলে যাবেন।

জনপ্রিয়

Back To Top