সংবাদ সংস্থা, দিল্লি, ২৫ মার্চ- একের পর এক রাজ্যে ছড়াচ্ছে নোভেল করোনা ভাইরাস। বুধবার এল দু’‌জনের মৃত্যুর খবর। তামিলনাড়ুর মাদুরাইয়ে এবং মধ্যপ্রদেশের ইন্দোরে। মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১২। আক্রান্ত ৬০৬। তাঁদের মধ্যে ৪৩ জন বিদেশি।
মাদুরাইয়ে মৃত ব্যক্তির বয়স হয়েছিল ৫৪। ডায়াবেটিস ও উদ্বেগের রোগে ভুগছিলেন। দিন কয়েক আগে করোনার উপসর্গ নিয়ে মাদুরাইয়ের রাজাজি হাসপাতালে ভর্তি হন। রক্তপরীক্ষায় করোনা ধরা পড়ে। মঙ্গলবার রাত দেড়টা নাগাদ তাঁর মৃত্যু হয়। তামিলনাড়ুর বাইরে যাননি তিনি। কিন্তু থাইল্যান্ডের একদল পর্যটকের সংস্পর্শে এসেছিলেন। ওই পর্যটক দলের দু’‌জন অসুস্থ হয়ে ইরোড জেলার সরকারি হাসপাতালে ভর্তি। তাঁদের রিপোর্ট পজিটিভ। তামিলনাড়ুতে মোট আক্রান্ত ২৩। মৃত্যু এই প্রথম। মধ্যপ্রদেশেও করোনা সংক্রমণে মৃত্যুর ঘটনা প্রথম। মৃত ৬৫ বছরের এক মহিলা। উজ্জয়িনীর বাসিন্দা। অসুস্থ হওয়ায় প্রাথমিক চিকিৎসা হয় উজ্জয়িনীতে। পরে ইন্দোরের সরকারি হাসপাতালে ভর্তি করা হলেও বাঁচানো যায়নি তাঁকে। মধ্যপ্রদেশে মোট ১৪ জন করোনায় আক্রান্ত।
দেশের মধ্যে আক্রান্ত সর্বাধিক মহারাষ্ট্রে। সেখানে নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন ৪ জন। রাজ্যে এখন আক্রান্ত ১২২। সংক্রমণ মোকাবিলায় এখন দেশ জুড়ে লকডাউন। সকলকে ঘরে থাকার পরামর্শ দিয়ে মুখ্যমন্ত্রী উদ্ধব ঠাকরে বলেছেন, ‘‌আতঙ্কের কারণ নেই। সরকারের ঘরে পর্যাপ্ত নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিস রয়েছে।’
আক্রান্তের দিক থেকে দ্বিতীয় স্থানে কেরল। সেখানে আক্রান্ত ১০৫। ‌কর্ণাটকে আক্রান্ত ৪১ জন। গুজরাটে ৩৮ জন। আমেদাবাদ, বরোদা ও সুরাটে নতুন করে তিনজন আক্রান্ত হয়েছেন। এঁদের মধ্যে একজন দুবাই থেকে এসেছেন। রাজ্যের ৬০ লাখ গরিব মানুষ, যাঁদের কাছে রেশন কার্ড আছে, তাঁদের নায্যমূল্যের দোকান থেকে বিনামূল্যে চাল, গম, ডাল, চিনি দেওয়া হবে বলে জানিয়েছে রাজ্য সরকার। ১ এপ্রিল থেকে এই ব্যবস্থা চালু হবে। করোনায় আক্রান্ত ২৪ বছরের যুবতী রায়পুরে এইমসে ভর্তি। তিনি সুস্থ হয়ে উঠছেন। তাছাড়া, তেলেঙ্গানায় ৩৯, উত্তরপ্রদেশে ৩৬, রাজস্থানে ৩২, দিল্লিতে ২৯, হরিয়ানায় ৩০, পাঞ্জাবে ৩১, লাদাখে ১৩, পশ্চিমবঙ্গে ৯, অন্ধ্রপ্রদেশে ৭, চণ্ডীগড়ে ৬, জম্মু–কাশ্মীরে ৭, উত্তরাখণ্ডে ৫, বিহারে ৪, হিমাচলপ্রদেশে ২, ওডিশায় ২, পুদুচেরিতে ১, মণিপুরে ১, ছত্তিশগড়ে ১ জন আক্রান্ত।

জনপ্রিয়

Back To Top