সভাপতি পদ থেকে বহিষ্কৃত চিরাগ পাসোয়ান, শিগগিরই ক্ষমতায় তাঁর কাকা 

আজকাল ওয়েবডেস্ক: একঘরে করা হয়েছিল আগেই, এবার দলের সভাপতির পদ কেড়ে নেওয়া হল চিরাগ পাসোয়ানের। দলের বিদ্রোহী সাংসদরাই এখন নিয়ন্ত্রণ হাতে নিয়ে নিয়েছেন। চিরাগকে সরানো হল ‘এক ব্যক্তি, এক পদ’ নীতি অনুযায়ী, বলছেন লোক জনশক্তি পার্টির (এলজেপি) বিদ্রোহীরা। তাঁর কাকা পশুপতি কুমার পরশই যে কলকাঠি নাড়ার পেছনে মুখ্য ভূমিকা নিয়েছেন তা মোটামুটি স্পষ্ট। চিরাগের জায়গায় আপাতত কাজ চালিয়ে যাবেন সূরয ভান। খুব শিগগিরই এগজিকিউটিভ মিটিংয়ে নতুন সভাপতি নির্বাচন হবে। সপ্তাহখানেকের মধ্যে পশুপতি কুমারের হাতে সমস্ত ক্ষমতা চলে আসবে বলে খবর।
এলজেপির মোট সাংসদ সংখ্যা ছয়। তাঁদের মধ্যে পাঁচজনই বিদ্রোহ করায় একঘরে হয়ে যান রামবিলাস পাসোয়ানের ছেলে চিরাগ। ঘটনার গতিপ্রকৃতি বলছে, খুব শিগগিরই দলের সমস্ত ক্ষমতা থেকে সরিয়ে দেওয়া হবে তাঁকে। চিরাগের কাকা পশুপতিকে এই গোটা ঘটনায় নীতিশ কুমার এবং বিজেপি সাহায্য করেছে বলে জল্পনা। গতকাল ভাইপোর সঙ্গে দেখা করেননি তিনি, অথচ তাঁর বাড়ির দরজায় এক ঘণ্টা ৪৫ মিনিট দাঁড়িয়েছিলেন চিরাগ। 
সভাপতি পদ থেকে বহিষ্কৃত হয়ে আবেগমথিত টুইট করেছেন রামবিলাসের পুত্র। তিনি লেখেন, ‘বাবা এবং পরিবারের প্রতিষ্ঠিত দলটাকে একজোট রাখার চেষ্টা করেছিলাম, কিন্তু ব্যর্থ হয়েছি। দল হল মায়ের মতো এবং মায়ের সঙ্গে কখনওই বিশ্বাসঘাতকতা করা যায় না। গণতন্ত্রে জনতাই সব। যাঁদের দলের ওপর বিশ্বাস আছে তাঁদের সবাইকে ধন্যবাদ।’