‘‌এটা মহাভারত’‌, সংখ্যাগরিষ্ঠ এলজেপি নেতাকে পাশে পাওয়ার দাবি চিরাগের

আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ তাঁকে নেতা মানতে চাইছেন না এলজেপি–র বেশিরভাগ সদস্য। তাঁকে সরিয়ে তাঁরই কাকা পশুপতি পারসকে দলের সভাপতি করা হয়েছে। লোকসভায়ও পারসকেই দলের নেতা ঘোষণা করেছেন স্পিকার ওম বিড়লা। এত কিছুর পরেও হারতে নারাজ চিরাগ পাসোয়ান। দলের প্রতিষ্ঠাতা রামবিলাসের ছেলে। স্পষ্ট জানিয়ে দিলেন, এলজেপি–তে সংখ্যাগরিষ্ঠ সমর্থন এখনও তাঁর পাশে। পারস প্রমাণ করুন, কত জন তাঁর পাশে রয়েছেন।
এর পরেই চিরাগ জানিয়ে দিলেন, ‘‌এটা মহাভারতের লড়াই। কারণ আমার নিজের লোকেরাই আমার বিরুদ্ধে দাঁড়িয়েছেন।’‌ তিনি এও বললেন, ‘‌বাবা মারা যাওয়ার পর যখন সবথেকে বেশি আমার কাকার আশীর্বাদের দরকার ছিল, তখন তিনি এসব করলেন। সকলের সামনে।’‌ 
সব পদ হারিয়ে লোক জনশক্তি পার্টির জাতীয় এগজিকিউটিভ কাউন্সিলের বৈঠক ডাকেন এলজেপি নেতা চিরাগ পাসোয়ান। যদিও দলের বর্তমান নেতা পশুপতি পারসের সমর্থকদের দাবি, পারস দলের নেতা হয়েই এলজেপি–র সব কমিটি ভেঙে দিয়েছেন। তা ছাড়া চিরাগ যে হেতু দলের সভাপতি নন, তাই তাঁর ডাকা এই বৈঠক অবৈধ। 
এলজেপির ৬ জন সাংসদের মধ্যে ৫ জনই পশুপতি পারসের পাশে। এদিকে চিরাগের পাল্টা দাবি, জাতীয় এগ্‌জিকিউটিভ কমিটির ৯০ ভাগ সদস্যের সমর্থনতাঁর দিকেই রয়েছে। তাঁর সমর্থকদেরও দাবি, দলেই কোণঠাসা হয়ে সব পদ হারালেও চিরাগই এগিয়ে। বিহারের পাসোয়ান জনগোষ্ঠীও চিরাগের পাশেই রয়েছেন বলে দাবি তাঁদের। কথাটা মানছে বিজেপিও। দলের একাধিক নেতার বক্তব্য, পাসোয়ান ভোটব্যাঙ্ক কিন্তু চিরাগের পাশেই। এই অবস্থায় পারসকে সমর্থনের মানে হয় না।