আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ কেদারনাথে যে গুহায় ধ্যানে বসে সবাইকে চমকে দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি, সেই গুহারও রয়েছে বেশ কিছু বৈশিষ্ট্য। যা চমকে দেওয়ার মতোই। কারণ সেই গুহা আর পাঁচটা গুহার থেকে একদম আলাদা। সাধারণভাবে সাধুসন্তরা যে ধরনের গুহায় ধ্যান করেন, মোদির গুহা ছিল তার থেকে একদম আলাদা। এমনই চাঞ্চল্যকর তথ্য উঠে এসেছে।
সেই তথ্যের ভিত্তিতে জানা গিয়েছে, শনিবার বিকেল থেকে রবিবার সকাল পর্যন্ত যে গুহায় ধ্যান করেছেন মোদি, সেখানে ওয়াই–ফাই পরিষেবা ছিল। পাশাপাশি গুহার মধ্যে ছিল একটি টেলিফোনও। বিলাসবহুল শৌচাগারেরও ছিল তাঁর জন্য। এমনকী জামাকাপড় টাঙিয়ে রাখার জন্য হ্যাঙারের ব্যবস্থাও রাখা হয়েছিল। তিনি যতক্ষণ এখানে ছিলেন ততক্ষণ কোনও পুণ্যার্থীকে ঢুকতে দেওয়া হয়নি। এই নিয়ে দু’‌বছরে চারবার এখানে এলেন প্রধানমন্ত্রী। ৮ ফুট বাই ৯ ফুটের এই গুহায় প্রবেশের দরজার উচ্চতা পাঁচ ফুটের। এই গুহায় সারা রাত ধ্যান করে রবিবার সকালে সেখান থেকে বেরিয়ে পড়েন মোদি।
উল্লেখ্য, শনিবার সকালে কেদারনাথে পা রাখেন মোদি। তার পর মন্দিরে পুজো দিয়ে অঞ্চলের উন্নয়নের প্রকল্পগুলির অগ্রগ্রতির রিপোর্ট খতিয়ে দেখেন। তারপর হেঁটে গুহায় পা রাখেন তিনি। কেদারে ভক্তদের উদ্দেশ্যে হাত নেড়ে বদরীনাথে পাড়ি দেন তিনি। বেলা সাড়ে দশটা নাগাদ বদরীনাথে পৌঁছেছেন মোদি।

ছবি: ইন্ডিয়া ডট কম

জনপ্রিয়

Back To Top