আজকালের প্রতিবেদন, দিল্লি: গত সংসদীয় ভোটের সময় ছিল ‘‌চায়ে পে চর্চা’‌। পরের লোকসভা ভোটে ‘‌পাকোড়ে পে চর্চা’‌ হোক, চাইছেন দলের অনেকেই। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি অবশ্য আপাতত লাঞ্চ পে চর্চা শুরু করতে বলেছেন দলের সাংসদদের। চাষিদের আর মধ্যবিত্তের জন্য কেন্দ্রের বাজেটে কী কী করা হয়েছে তা ব্যাখ্যা করার জন্য সাংসদদের নির্দেশ দিয়েছেন তিনি। আজ সংসদীয় দলের বৈঠকে তিনি বলেন, নিজেদের দুপুরের খাবার নিয়ে গিয়ে কর্মীদের সঙ্গে বসে সেই খাবার খেতে খেতে সরকারের সমস্ত প্রকল্প তাঁদের বুঝিয়ে বলতে। মোদি বলেন, ২০১৪ সালের ভোটের সময় তিনিও এভাবেই তাঁর খাবার নিয়ে যেতেন, আর দুপুরবেলায় কর্মীদের সঙ্গে বসে খেতে খেতে কাজের কথা সেরে নিতেন।
অমিত শাহ রাফাল চুক্তির বিভিন্ন দিক ব্যাখ্যা করে সাংসদদের বলেন মানুষকে এই বিষয়টা ভাল করে বোঝাতে। চুক্তির সব কথা প্রকাশ্যে এলে কীভাবে দেশের নিরাপত্তা ব্যাহত হবে তা বিশদে মানুষকে বোঝাতে বলেন তিনি। রাহুল গান্ধী যেভাবে রাফাল চুক্তি নিয়ে হইচই ফেলে দিয়েছেন তার জবাব দেওয়ার জন্যই এই নির্দেশ। কংগ্রেস সভাপতির রাজনীতির ধরনকে অ‌গণতান্ত্রিক বলেছেন বিজেপি সভাপতি অমিত শাহ। বলেছেন, প্রধানমন্ত্রী সংসদে বক্তৃতা দিতে গেলেই, ইচ্ছা করে গোল বাধান রাহুল!‌ সংসদের কাজ ব্যাহত করেন। এটাই কংগ্রেসের ‘‌‌রাহুল সংস্কৃতি’‌ বলে মন্তব্য করেন তিনি। বৈঠকে এক সাংসদ জানতে চান, রাজস্থানে হার কি কৃষক বিক্ষোভের ফল?‌ দলের সভাপতি অমিত শাহ তাঁকে বলেন, ‘‌রাজস্থানের হার ভুলে যান। ২০১৯–এর জয়ের দিকে তাকান।’‌‌

থমথমে। বিজেপি সংসদীয় দলের বৈঠকে মোদি, অমিত শাহ ও রাজনাথ সিং। ছবি: পিটিআই

জনপ্রিয়

Back To Top