আজকাল ওয়েবডেস্কঃ বিতর্কে বিহারের মুখ্যমন্ত্রী নীতীশ কুমার। নিজের বক্তব্যের জন্য নেটিজেনদের সমালোচনার মুখে পড়লেন তিনি। সম্প্রতি ঘটে যাওয়া হায়দরাবাদ ধর্ষণ কাণ্ড প্রসঙ্গে তিনি বলেছিলেন, পর্ন সাইটের রমরমার কারণেই ধর্ষণের মতো ঘটনা বৃদ্ধি পাচ্ছে। যদিও নেটিজেনরা নীতীশ কুমারের এই বক্তব্যের সঙ্গে একেবারেই সহমত পোষণ করেননি। বরং তাঁরা দাবি তুলেছেন, পর্নসাইটের আগে ভোজপুরি সিনেমা নিষিদ্ধ করা উচিত। এই সমস্ত 'বি' গ্রেড সিনেমা থেকে সমাজের উপর কুপ্রভাব পড়ছে, যার দরুণ ধর্ষণের মত দুঃসাহসিক অপরাধের মাত্রা ক্রমশ বৃদ্ধি পাচ্ছে। আবার কেউ বলেছেন, দাউদ এবং রইস-এর মতো গ্যাংস্টারদের জীবনের উপর নির্মিত বলিউড সিনেমাগুলোকে প্রথমে বন্ধ করা উচিত। এগুলো কখনোই আমাদের সমাজের জন্য ভালো উদাহরণ হতে পারে না। আরেক নেটিজেনের মন্তব্য, "প্রথম কাজ সবাইকে শিক্ষিত করে তোলা...শেখাতে হবে সমাজে কীভাবে থাকতে হয়, অপরকে শ্রদ্ধা করতে হয় এবং কীরকম আচরণ করতে হয়...তথাকথিত পুরনো আমলের শিক্ষাকে দূরে সরিয়ে দিতে হবে, যথাসম্ভব কম অর্থের বিনিময়ে শিক্ষা প্রদান করে চাকরির সুযোগ দিতে হবে...পাশাপাশি বাইরের দেশগুলির মতো এখানেও সব রকম চাকরিকে সমান শ্রদ্ধার চোখে দেখতে হবে...তবেই দেশ থেকে "ধর্ষণে"র মত বর্বোরোচিত অত্যাচারের অবসান ঘটবে। আরেকজনের বক্তব্য, 'আরে সবচেয়ে খারাপ তো বিহারের সিনেমাগুলো। গানগুলোও খুব বাজে। ওই ধরনের সিনেমাগুলিই দেশের নাম খারাপ করছে।' এর আগে নীতীশ কুমার বলেছিলেন, "মহিলাদের উপর যে যৌন হেনস্থা বা অত্যাচার করা হচ্ছে, তার মূল কারণ হল পর্ন সাইটের রমরমা। পর্ন সাইটগুলিতে ধর্ষণের ভিডিও-ও থাকে। ধর্ষকরা হয়তো নিজেই সেই ভিডিও তুলে পোস্ট করে। আমি কেন্দ্রের কাছে অনুরোধ করব এমন সমস্ত ওয়েব সাইট নিষিদ্ধ করতে, যাতে যৌন উত্তেজনামূলক ভিডিও দেখানো হয়।" বিহারের মুখ্যমন্ত্রীর এই মন্তব্যের সঙ্গে সঙ্গেই সোশ্যাল মিডিয়ায় সমালোচনার ঝড় বয়ে গিয়েছে।

জনপ্রিয়

Back To Top