আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ বিনা অনুমতিতে জামা মসজিদে নাগরিকত্ব সংশোধনী আইনের বিরুদ্ধে বিক্ষোভ সংগঠিত করেছিলেন ভীম আর্মি প্রধান চন্দ্রশেখর আজাদ। এই অভিযোগে তাঁকে গ্রেপ্তার করেছিল দিল্লি পুলিশ। তবে অবশেষে সেই মামলায় জামিন পেলেন আজাদ। বুধবার তাঁকে জামিন দিল দিল্লির তিস হাজারি আদালত। তবে তাঁকে ২৫ হাজার টাকার ব্যক্তিগত বন্ড জমা দিতে হবে। এর পাশাপাশি অতিরিক্ত দায়রা বিচারক কামিনী লাউ বেশ কিছু শর্তও আরোপ করেছেন জামিনের নির্দেশে। দিল্লির বিধানসভা নির্বাচনের জন্য আগামী চার সপ্তাহ রাজধানীতে কোনও অবস্থান–বিক্ষোভ বা সভা করতে পারবেন না আজাদ। এই সময় তিনি দিল্লিতে থাকতেও পারবেন না। এমনকি শাহিনবাগের বিক্ষোভস্থলেও যেতে পারবেন না।
এর আগে মঙ্গলবারই তাঁর জামিনের শুনানি শুরু হয়েছিল। তখন দিল্লি পুলিশকে ভর্ত্‍সনা করে তিস হাজারি আদালতের বিচারক। বলে, বিক্ষোভ প্রদর্শন নাগরিক অধিকার। সেই অধিকার কেড়ে নেওয়া যায় না। এমনকি হিংসা ছড়ানোর অভিযোগ আনার পর বিচারক কামিনী লাউ সরকারি আইনজীবীকে ভর্ত্‍সনা করে বলেন, ‘‌কোথায় হিংসা, চন্দ্রশেখরের সোশ্যাল মিডিয়ার পোস্টে কোথায় ভুল? কেন প্রতিবাদ করা যাবে না? সংবিধানটা আদৌ পড়ে দেখেছেন?’‌
এদিনের রায়ে আদালত পুলিশকে নির্দেশ দিয়েছে, ২৪ ঘণ্টার মধ্যে আজাদকে তাঁর বাসস্থল উত্তরপ্রদেশের সাহারানপুরে পৌঁছে দিতে। তবে তার আগে ২৪ ঘণ্টা পর্যন্ত জামা মসজিদ–সহ দিল্লির কোনও জায়গায় যেতে চাইলে পুলিশি ঘেরাটোপে তাঁকে যেতে হবে। চার্জশিট জমা না পড়া পর্যন্ত প্রত্যেক শনিবার সাহারানপুর থানায় তাঁকে হাজিরা দিতে হবে। শারীরিক অসুস্থতার কারণে দিল্লির এইমসে যেতে হলে পুলিশকে আগে থেকে জানাতে হবে আজাদকে। তাতে পুলিশই তাঁকে নিরাপত্তা দিয়ে নিয়ে যাবে হাসপাতালে। 

জনপ্রিয়

Back To Top