আজকালের প্রতিবেদন: আবার বাড়ল জ্বালানির দাম। আন্তর্জাতিক বাজারে অপরিশোধিত পেট্রোলিয়ামের দাম গত তিনদিন ধরে কমতি। তা সত্ত্বেও মঙ্গলবার পেট্রল–ডিজেলের দাম আবার বাড়ল। পেট্রল লিটারে ৭ পয়সা এবং ডিজেল ৮ পয়সা বেড়ে এদিন মুম্বইয়ে পেট্রল ছিল ৮১.‌২৪ টাকা প্রতি লিটার। গত ৪ বছরের মধ্যে সব থেকে বেশি। চেন্নাইয়ে পেট্রলের দাম বেড়ে হয়েছে ৭৬.‌১২ টাকা, কলকাতায় ৭৬.‌০৭ টাকা এবং দিল্লিতে ৭৩.‌৩৮ টাকা প্রতি লিটার। ডিজেলের দাম মু্ম্বইয়ে ছিল লিটারে ৬৮.‌৩৯ টাকা, চেন্নাইয়ে ৬৭.‌৭৩, কলকাতায় ৬৬.‌৮৯ এবং দিল্লিতে ৬৪.‌২২ টাকা। ওদিকে, অপরিশোধিত তেলের দাম বিশ্ব বাজারে ৭৪ সেন্ট, মানে ১.‌১%‌ কমেছে।
আন্তর্জাতিক বাজারদরের সঙ্গে সঙ্গতি রেখে জ্বালানির দাম না কমার জন্য এখন রাজ্যে রাজ্যে ভ্যাট বা যুক্তমূল্য করকেই দুষছে কেন্দ্রীয় পেট্রোলিয়াম মন্ত্রক। যে কারণে তেলমন্ত্রী ধর্মেন্দ্র প্রধান পেট্রল–ডিজেলকে জিএসটি–র আওতায় আনার জন্য আবারও জোরদার সওয়াল করেছেন। অক্টোবরে আন্তর্জাতিক স্তরে যখন অপরিশোধিত পেট্রোলিয়ামের দাম বেড়ে যাচ্ছিল, দেশের বাজারে জ্বালানির দাম নিয়ন্ত্রণে রাখতে পেট্রল–ডিজেলের আমদানি শুল্ক লিটারে ২ টাকা করে কমিয়েছিল কেন্দ্র সরকার। কিন্তু মাত্র ৪টি রাজ্য তার পর জ্বালানির ওপর ধার্য ভ্যাটের হার কমিয়েছিল। রাজ্যগুলির নাম না করে এক লিখিত বিবৃতিতে লোকসভাকে জানিয়েছেন ধর্মেন্দ্র প্রধান। যদিও শুল্ক হার কমানোর সেই সিদ্ধান্তের সুফল পাওয়া যায়নি, যেহেতু সেই সময় থেকে অপরিশোধিত তেলের আন্তর্জাতিক বাজারদর ক্রমাগত বাড়তেই থেকেছে। লিটারে ৪ টাকা পর্যন্ত বেড়েছে দাম।
অক্টোবরে জ্বালানির আমদানি শুল্ক লিটারে ২ টাকা কমানোর পর কেন্দ্রীয় তেল মন্ত্রক পেট্রল–ডিজেলের ভ্যাট ৫%‌ কমানোর সুপারিশ করেছিলেন রাজ্যগুলির কাছে। কিন্তু গুজরাট, মহারাষ্ট্র, মধ্যপ্রদেশ এবং হিমাচল প্রদেশ— এই ৪ রাজ্য এবং কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলগুলি ছাড়া আর কোনও রাজ্য সেই অনুরোধ রাখেনি। যদিও দেশের ১৯টি রাজ্যে বিজেপি–ই ক্ষমতায়! এবার আশঙ্কা, অপরিশোধিত তেলের দাম আরও বাড়বে। এই মুহূর্তে যে দাম ব্যারেল–প্রতি ৬৬.‌৮৮ ডলার, তা ২০১৯ সালে ৮০, এমনকী ১০০ ডলার পর্যন্ত চড়ে যেতে পারে বলে বিশ্ব বাজারের পর্যবেক্ষকেরা আশঙ্কিত। সেখানে ভারতে জ্বালানির দাম কোথায়‌ গিয়ে পৌঁছতে পারে, সেটাই দেখার। ‌

জনপ্রিয়

Back To Top