আজকাল ওয়েবডেস্ক: ‘‌আমি হিন্দু হৃদয়সম্রাট বালাসাহেব ঠাকরের নাতি। আমি বলতে চাই, এমন কিছু আমি করব না যাতে মহারাষ্ট্রের, শিবসেনার এবং ঠাকরে পরিবারের নাম কখনও খারাপ হয়।’ সুশান্তের মৃত্যুর সঙ্গে নাম জড়িয়েছিল ঠাকরে পরিবারের কনিষ্ঠতম সদস্যের। সেই অভিযোগকে নাটকীয়ভাবে মিথ্যে বলে ওড়ালেন খোদ পর্যটন মন্ত্রী আদিত্য ঠাকরে। 
দিন কয়েক ধরে একটি ছবি সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়েছে। যা নিয়েই এত জলঘোলা। গাড়ির চালকের আসনে রয়েছে আদিত্য ঠাকরে। পাশে এক তরুণী। তিনি কি রিয়া চক্রবর্তী?‌ সুশান্ত সিং রাজপুতের প্রেমিকা! সোশ্যাল সাইটে উদ্ধব ঠাকরে সরকারকে একহাত নিতে শুরু করেছিলেন নেটিজেনদের একাংশ। এও বলছিলেন অনেকে, এই কারণেই বিচার পাচ্ছেন না সুশান্ত সিং। কিন্তু বিষয়টা স্পষ্ট করেছেন এক টুইটার ব্যবহারকারীই। মহারাষ্ট্রের মুখ্যমন্ত্রী উদ্ধব ঠাকরের ছেলের পাশে রয়েছেন অভিনেতা দিশা পাটানি। গত বছর জুনের এক রাতের ছবি। দু’‌জনে কোনও এক রেস্তোরাঁয় খেতে গেছিলেন। তখনই ছবিটি তোলেন কোনও সাংবাদিক।
সেই কুমন্তব্যের পর এই প্রথম মুখ খুললেন আদিত্য ঠাকরে। ‘বলিউড জগতের কোনও মানুষের সঙ্গে সম্পর্ক রাখাটা কোনও পাপ নয়। কিন্তু তা বলে সুশান্ত সিং রাজপুতের মৃত্যুর ঘটনার সঙ্গে আমার নাম জড়িয়ে আদপে নোংরা রাজনীতি করা হচ্ছে। আমার সঙ্গে যেই ঘটনার কোনও সংযোগ নেই। কিন্তু আমি মাথা ঠ
ঠাণ্ডা রাখব বলেই ঠিক করেছি। মহারাষ্ট্রকে এখন অদৃশ্য শত্রু করোনা ভাইরাসের সঙ্গে লড়াই করতে হচ্ছে। এবং কোথাও গিয়ে আমরা যে সফল হচ্ছি এই যুদ্ধে, সেটাই বোধহয় অনেকে মেনে নিতে পারছেন না। তাই সম্ভবত সুশান্ত সিং রাজপুতকে নিয়ে নোংরা, সস্তা রাজনীতিতে নেমেছেন। যাঁরা আইনে বিশ্বাস রাখেন না, তাঁরা আসলে এই ঘটনাকে অন্যদিকে ঘুরিয়ে দেওয়ার জন্যেই এসমস্ত করছেন। যদি কারওর কাছে কোনও বিশেষ তথ্য থাকে, তাহলে তাঁরা পুলিশকে দিন। নিশ্চয়ই তদন্ত হতে সেবিষয়ে।’‌

জনপ্রিয়

Back To Top