আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ সাক্ষী মিশ্রের ঘটনার রেশ এখনও থিতিয়ে যায়নি। তারই মধ্যে আরও একটি ভিডিও ছড়িয়ে পড়ল সোশ্যাল মিডিয়ায়। যেখানে দেখা যাচ্ছে, একজন যুবতী নিরাপত্তা চাইছেন ভিন জাতে বিয়ে করার কারণে। সাক্ষী মিশ্র হলেন উত্তরপ্রদেশের বিধায়কের মেয়ে। কিন্তু এই যুবতী তা নন। একেবারেই সাধারণ পরিবারের মেয়ে। এবার উঠে এল সীমারিয়া গ্রামের কথা। বিবাহিত ওই যুবতী নিরাপত্তা চেয়েছেন পুলিশের কাছে। কারণ তাঁর পরিবারের পক্ষ থেকে মেরে ফেলার হুমকি দেওয়া হয়েছে। এই হুমকির কারণ ভিন জাতে বিয়ে করেছেন যুবতী। এটাই তাঁর অপরাধ। 
পুলিশ সূত্রে খবর, এই যুবতীর নাম রাগিনী দ্বিবেদী। তিনিই ১৫ জুলাই নিরাপত্তা চেয়ে ভিডিও আপলোড করেন সোশ্যাল মিডিয়ায়। যা এখন ভাইরাল। সেখান থেকেই জানা যায়, ভিন জাতে বিয়ে করায় তাঁকে খুন করার হুমকি দেওয়া হয়েছে পরিবারের পক্ষ থেকে। 
ভিডিওতে ঠিক কী বলেছেন রাগিনী?‌ ভিডিওতে রাগিনী জানিয়েছেন, ‘‌আমার বয়স ২২। আমি ডিকে কুশওয়াহাকে বিয়ে করেছি। আমরা পরস্পরকে ভালবাসি এবং আমরা বিয়ে করে সুখী। কিন্তু আমার পরিবার ও জনৈক অনিল দীক্ষিত আমাদের খুন করার ষড়যন্ত্র করেছে। আমি পুলিশ এবং সংবাদমাধ্যমের সাহায্য চাইছি। ইতিমধ্যেই তারা আমার স্বামীর পরিবারকে হুমকি দিয়েছে। আমরা কোনও অপরাধ করিনি পরস্পরকে বিয়ে করে।’‌ এমনকী ভিডিও’‌র শেষে তিনি বলেন, ‘‌কেউ যদি আমাদের সাহায্য না করেন, তাহলে আমাদের আত্মহত্যার পথ বেছে নিতে হবে।’‌ এই ভিডিও’‌র পরই সীমারিয়ার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার বিকেএস পারিহার জানান, বিষয়টি তাঁরা তদন্ত করে দেখছেন এবং যুবতীটিকে নিরাপত্তা দেওয়া হবে।

জনপ্রিয়

Back To Top