Election: বেসুরো কংগ্রেস!‌ ৫ রাজ্যে বিপর্যয়ের পরের দিনই আজাদের বাড়িতে বৈঠকে ‘‌বিক্ষুব্ধ’‌রা

আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ গতকালই পাঁচ রাজ্যে বিধানসভা নির্বাচনেক ফল প্রকাশিত হয়েছে।

তাতে মুখ থুবড়ে পড়েছে কংগ্রেস। তিন রাজ্যে প্রবল সম্ভাবনা থাকলেও তা সমূলে নষ্ট হয়েছে। আর এজন্য দলের হাইকমান্ডকেই দায়ী করছেন একাংশ থেকে নিচু তলার কর্মীরা। আর এই কারণেই ফের ফাটল প্রকাশ্যে। আজ, শুক্রবার প্রাক্তন কংগ্রেস সাংসদ গুলাম নবি আজাদের বাড়িতে এক এক করে হাজির হলেন ‘‌বিক্ষুব্ধ’‌রা। 
এক প্রবীণ নেতা গতকালই জানিয়েছিলেন, ৪৮ ঘণ্টার মধ্যেই কংগ্রেসের ‘‌জি–২৩’‌ বিক্ষুব্ধরা বসবেন বৈঠকে। সেই কথাই সত্যি হল। শুক্রবার সন্ধেবেলা গুলাম নবি আজাদের দিল্লির বাড়িতে একে একে ঢুকলেন কপিল সিবাল, আনন্দ শর্মা, মণীশ তিওয়ারি। বাকিরাও যোগ দিয়েছেন বলেই সূত্রের খবর।
প্রসঙ্গত, গুলাম নবি আজাদের নেতৃত্বে ২২ জন কংগ্রেস নেতা ২০২০ সালের আগস্টে সভানেত্রী সোনিয়া গান্ধীকে চিঠি দেন। দলের নেতৃত্বে রদবদলের দাবি তোলেন। স্থায়ী সভাপতি নির্বাচনের ওপরও জোর দেন। দু’‌ বছর কেটে গেলেও কাজের কাজ কিছুই হয়নি। ক্রমেই ক্ষোভ বেড়েছে দলের একাংশ। বাকি অংশ আবার গান্ধী পরিবারের হয়েই ব্যাটন ধরেছেন।

Ukraine War: ‘‌ইতিবাচক’‌ পথেই এগোচ্ছে রাশিয়া–ইউক্রেন আলোচনা, বলছেন পুতিন


এবার পাঁচ রাজ্যে ভরাডুবির পর ফের সরব বিক্ষুব্ধরা। বড় রাজ্যগুলোর মধ্যে একমাত্র পাঞ্জাবই ছিল কংগ্রেসের হাতে। সেই রাজ্যও এবার হাতছাড়া। তাও দলের অন্দরের কোন্দলের কারণে। নভজ্যোত সিং সিধু আর অমরিন্দর সিংয়ের বচসায় হাইকমান্ড সিধুকেই সমর্থন করে। যার জেরে নির্বাচনের চার মাস আগে মুখ্যমন্ত্রিত্ব ছাড়তে বাধ্য হন অমরিন্দর। বিশেষজ্ঞরা মনে করছেন, সেই সুযোগ নিয়েই পাঞ্জাবে ক্ষমতায় আপ। উত্তরপ্রদেশে এবার প্রিয়াঙ্কা গান্ধীর ক্যারিশমাও কাজে আসেনি। তাতেও গান্ধী পরিবারের প্রতি ক্ষোভ বেড়েছে।
পাঁচ রাজ্যে নির্বাচনের ফল ঘোষণা হতেই বিক্ষুব্ধ নেতা শশী থারুর টুইটারে সোচ্চার হন। বলেন, দলে পরিবর্তন প্রয়োজন। কংগ্রেসের মুখপাত্র রণদীপ সুরজেওয়ালা বলেন, আত্মসমীক্ষা করবে দল। কিন্তু যাঁরা জানেন, তাঁরা জানেন, এসবই মুখের কথা। প্রতি ভোটের পরেই বলে দল। অগত্যা তাই বৈঠকে বসলেন আজাদরা। চেষ্টা, যদি শীর্ষ নেতৃত্বের সম্বিৎ ফেরে। 

আকর্ষণীয়খবর