আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ ভারতের ‘‌ডিভাইডার ইন চিফ’– নরেন্দ্র মোদি। লোকসভা নির্বাচনের পরে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে নিয়ে লেখা টাইম ম্যাগাজিনের এই কভার স্টোরিই হইচই ফেলে দিয়েছিল গোটা দেশে। প্রবন্ধটি লিখেছিলেন আতিস তাসির। আর এবার ৩৮ বছর বয়সি সেই লেখকেরই ‘‌ওভারসিজ সিটিজেনস অব ইন্ডিয়া’‌ বা ‘‌ওসিআই’‌ কার্ড বাতিল করা হল। আর সেই নিয়েই তৈরি হয়েছে নয়া বিতর্ক। বৃহস্পতিবারই আতিশের প্রবাসী ভারতীয় নাগরিকত্বের তকমা কেড়ে নিয়েছে ভারতীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রক। কেন্দ্রের যুক্তি, আতিশের বাবা যে পাকিস্তানি, সেই তথ্য লুকিয়েছেন তিনি। আর তাই এই সিদ্ধান্ত। আর একথা প্রকাশ্যে আসতেই শুরু হয় বিতর্ক। শেষপর্যন্ত স্বরাষ্ট্রমন্ত্রক বিবৃতি দিয়ে জানায়, টাইম ম্যাগাজিনের ওই প্রতিবেদনের সঙ্গে এই সিদ্ধান্তের কোনও সম্পর্ক নেই। এরপর স্বরাষ্ট্রমন্ত্রকের মুখপাত্র বসুধা গুপ্ত টুইটারে লেখেন, ‘‌ওসিআই বা পিআইও সংক্রান্ত বিতর্কের জবাব দেওয়া বা অভিযোগ জানানোর জন্য তাসিরকে সময় দেওয়া হয়েছিল। কিন্তু তিনি কোনওটাই করেননি।’‌ যদিও বসুধা গুপ্তের দাবি মিথ্যে বলে কিছুক্ষণের মধ্যেই টুইটারে দাবি করেন লেখক। একটি স্ক্রিনশট শেয়ার করে তিনি লেখেন, ‘‌এটা মিথ্যে। কনসাল জেনারেল আমার জবাব যে পেয়েছেন, এটি তার প্রাপ্তি স্বীকারের প্রমাণ। জবাব দেওয়ার জন্য আমাকে ২১ দিন নয়, ২৪ ঘণ্টা সময় দেওয়া হয়েছিল। মন্ত্রক থেকে আমি এখনও কোনও কিছু শুনিনি।’‌ জন্মসূত্রে ব্রিটিশ নাগরিক আতিশের ঘনিষ্ঠ মহল সূত্রে খবর, এই সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে আইনি লড়াইয়ের পথে যেতে পারেন তিনি। আসলে আতিশের বাবা সলমন তাসির ছিলেন পাকিস্তানি ব্যবসায়ী ও রাজনীতিক। মা ভারতীয় সাংবাদিক তভলিন সিংহ। আতিশের এই পাকিস্তানিযোগ গোপন করার অভিযোগই এনেছে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রক। 

জনপ্রিয়

Back To Top