Hijab Row: হিজাব নিষিদ্ধের প্রতিবাদ করায় ৫৮ পড়ুয়াকে বহিষ্কার কর্নাটকের কলেজে! 

আজকাল ওয়েবডেস্ক: হিজাব বিতর্কের আগুন ছড়িয়ে পড়ছে ক্রমাগত।

এবার কর্নাটকের এক কলেজে একসঙ্গে ৫৮ জন পড়ুয়াকে বহিষ্কার করা হয়েছে বলে অভিযোগ। জানা গেছে, শিবামোজ্ঞার একটি কলেজের পড়ুয়ারা হিজাব নিষিদ্ধের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ জানাচ্ছিল। কলেজের প্রিন্সিপালটি মৌখিকভাবে বহিষ্কার করেছেন বলে অভিযোগ উঠলেও, জেলার ডিসি বলছেন, প্রিন্সিপাল স্রেফ ভয় দেখিয়েছেন, বহিষ্কার করেননি। 
শিবামোজ্ঞার শিরালকোপ্পা তালুকের কলেজটির কিছু পড়ুয়া হিজাব পরতে না দেওয়ার সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করছিলেন। এরপরেই প্রিন্সিপালের রোষের মুখে পড়েন ছাত্রছাত্রীরা। একটি ভিডিও সামনে এসেছে, তাতে দেখা যাচ্ছে প্রিন্সিপাল বলছেন, কলেজের নিয়ম অমান্য করায় পড়ুয়াদের বহিষ্কার করা হল। ভিডিও অনুযায়ী প্রিন্সিপাল বলছেন, ‘ডেপুটি এসপি, ডিডিপিআই, এসডিএমসি তোমাদের বোঝানোর চেষ্টা করেছিলেন। তাও তাঁদের কথা শোনোনি। তোমরা কলেজের নিয়ম অমান্য করেছ। সেই কারণে আপাতত তোমাদের কলেজ থেকে বহিষ্কার করছি আমরা। এখন কলেজের গণ্ডির মধ্যে ঢুকতে পারবে না।’

 

আরও পড়ুন: দুই কাকের ঠোক্করের জ্বালায় অতিষ্ঠ এলাকা, ভয়ে হেলমেট পরে ঘুরছেন স্থানীয়রা! ​ 


শিবামোজ্ঞার ডিসির সঙ্গে সংবাদমাধ্যমের প্রতিনিধিরা যোগাযোগ করলে তিনি বহিষ্কারের অভিযোগ অস্বীকার করেন। তিনি বলেন, ‘প্রিন্সিপাল স্রেফ ওদের ভয় দেখাচ্ছিলেন, আমরা খোঁজ নিয়েছি। ছাত্রছাত্রীরা বিশৃঙ্খল হয়ে পড়ছিল। আমরা ওদের বাইরে অপেক্ষা করতে বলেছিলাম। বাচ্চারা প্রতিবাদ করতে ঢুকে পড়ছিল। সে সময় মৌখিকভাবেই বহিষ্কারের কথা বলেন, তবে এমন কোনও নির্দেশিকা জারি হয়নি।’ 
এদিকে কর্নাটকের যুব ক্ষমতায়ন এবং ক্রীড়ামন্ত্রী নারায়ণ গৌড়া জানিয়েছেন, ওই পড়ুয়াদের বহিষ্কার করা হয়নি। ‘স্রেফ বাড়ি পাঠানো এবং পড়ায় মনোনিবেশ করানোর জন্য ভয় দেখানো হয়েছে। ওদের ফের কলেজে ফিরিয়ে নেওয়া হবে।’      
 

আকর্ষণীয়খবর