আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ সময় যত এগোচ্ছে, দেশের শিক্ষাব্যবস্থা যেন ততটাই পিছিয়ে যাচ্ছে। বিশেষ করে যোগী আদিত্যনাথের রাজ্য উত্তরপ্রদেশে বারেবারেই শিক্ষাব্যবস্থার কঙ্কালসার ছবিটা সামনে এসেছে। কয়েকদিন আগেও মিড–ডে মিল নিয়ে বড়সড় কেলেঙ্কারি ঘটনা ঘটেছিল। আর এবার প্রকাশ্যে এল উত্তরপ্রদেশের জৌনপুরের মড়িয়াহু ব্লক প্রাইমারি স্কুলের এক শিক্ষিকার কীর্তি। যিনি কি না জেলাশাসকের সামনে ১৭ ঘরের নামতাই বলতে পারলেন না। আর তাই শেষপর্যন্ত মীরা সিং নামে ওই ‘‌শিক্ষামিত্র’‌–এর বিরুদ্ধে তদন্তের নির্দেশ দিলেন জেলাশাসক দীনেশ কুমার সিং। যদিও জেলাশাসকের এই সিদ্ধান্তের পক্ষে থাকা তো দূর, উল্টে তাঁর সমালোচনা করে বসলেন ন্যূনতম শিক্ষা রাজ্যমন্ত্রী     সতীশ দ্বিবেদী। আর সেটা প্রকাশ্যে আসতেই সমালোচনায় মুখর হয়েছেন বিরোধীরা।
সোশ্যাল মিডিয়ায় ইতিমধ্যে ভাইরাল মীরা সিংয়ের এই কীর্তির ভিডিও ফুটেজ। তাতে দেখা যাচ্ছে, আচমকা স্কুল পরিদর্শনে আসে জেলাশাসক। মীরা সিংয়ের সঙ্গে কথা বলার সময় তাঁকে ১৭ ঘরের নামতা বলতে বলেন। কিন্তু আমতা আমতা করতে থাকেন ওই শিক্ষিকা। এরপর আরেক শিক্ষিকাকে একই প্রশ্ন করা হলে, তিনি সঠিক উত্তরটি দেন। এরপরই মীরা সিংয়ের উপর তদন্তের নির্দেশ দেন জেলাশাসক। কিন্তু ঘটনার কথা জানতে পেরে উল্টে দীনেশ কুমারের সমালোচনায় মুখর হন সতীশ। বলেন, জেলাশাসকের উচিত ছিল শিক্ষক পদটির গরিমা অক্ষুণ্ন রাখা। তাঁর এই কীর্তিতে পদটির গরিমা নষ্ট হয়েছে।   ‌‌

জনপ্রিয়

Back To Top