আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ প্রয়াত গুজরাটের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী কেশুভাই প্যাটেল। বুকে ব্যথার জন্য তাঁকে আমেদাবাদের স্টারলিং হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছিল। সেখানেই হৃদরোগে মৃত্যু হয় তাঁর। মৃত্যুকালে তাঁর বয়স হয়েছিল ৯২। গত মাসে তাঁর ছেলে ভরত প্যাটেল জানিয়েছিলেন, করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন কেশুভাই। জানা গিয়েছিল, কো–মর্বিডিটি থাকা সত্বেও তাঁর শরীরে কোনও উপসর্গ ছিল না। প্রোস্টেট ক্যান্সারে ভুগছিলেন বেশ কয়েকদিন ধরে। বাইপাস সার্জারিও হয়েছিল। 

গুজরাটের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী প্রয়াণে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি বলেন, ‘‌আমি অত্যন্ত দুঃখিত এবং শোকাহত। কেশুভাই প্যাটেল একজন দুর্দান্ত নেতা ছিলেন। আমার মতই অনেক অল্পবয়সী নেতাকর্মীদের গুরু ছিলেন কেশুভাই। তিনিই আমাদের তৈরি করেছিলেন। ওনার পরিবার ও শুভানুধ্যায়ীদের প্রতি সমবেদনা রইল।’‌ 

১৯৯৫ সালে কয়েক মাসের জন্য গুজরাটের মুখ্যমন্ত্রী হয়েছিলেন কেশুভাই প্যাটেল। তারপর ফের ১৯৯৮ থেকে ২০০১ সাল পর্যন্ত গুজরাটের মুখ্যমন্ত্রী ছিলেন তিনি। তারপর বিজেপির সঙ্গে সম্পর্ক ছিন্ন করে নিজে একটি রাজনৈতিক দল তৈরি করেছিলেন, যার নাম গুজরাট পরিবর্তন পার্টি। ২০১৪ সালে ফের বিজেপির সঙ্গে যুক্ত হয় তাঁর দল। ছোট বয়স থেকেই আরএসএস–এর সঙ্গে যুক্ত ছিলেন তিনি। স্বাধীনতার পর ষাটের দশকে জনসঙ্ঘের কর্মী হিসাবে তাঁর রাজনৈতিক জীবন শুরু করেছিলেন কেশুভাই।

জনপ্রিয়

Back To Top