আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ ধর্ষণে ‌অভিযুক্তের উদ্দেশে নির্যাতিতাতে বিয়ে করার পরামর্শ দেওয়ার অভিযোগে সম্প্রতি বিতর্কে জড়িয়েছেন সুপ্রিম কোর্টের প্রধান বিচারপতি। সে বিষয়ে এদিন এসএ বোবদে বলেন, ভুল খবর দেখিয়েছে সংবাদমাধ্যমগুলো। মহিলাদের অসম্মান করার কোনও অভিপ্রায় তাঁর ছিল না। যা বলা হয়েছে, পুরোটাই অন্য প্রেক্ষিতে
শরদ এ বোবদের বক্তব্য, ‘‌‘‌অভিযুক্তকে কখনই বিয়ে করতে বলিনি। আমরা জিজ্ঞেস করেছি, ‘‌আপনি কি বিয়ে করবেন?‌’‌ বিয়ে করতে বলা হয়নি।’‌’‌  
জামিনের আবেদন জানিয়ে শীর্ষ আদালতের দ্বারস্থ হয়েছিলেন ধর্ষণে অভিযুক্ত মহারাষ্ট্রের সরকারি কর্মচারী মোহিত চাবন। এক স্কুলছাত্রী নাবালিকাকে ধর্ষণ করার অভিযোগে তাঁর বিরুদ্ধে পকসো আইনের ধারায় মামলায় দায়ের হয়ছিল। শোনা গিয়েছিল, সেই মামলায় রায়ে সুপ্রিম কোর্টের প্রধান বিচারপতি বলেছেন, ‘‌‌আপনি যদি ধর্ষিতাকে বিয়ে করেন, তবেই আপনাকে সাহায্য করা হবে। আর না–হলে আপনার চাকরি যাবে এবং আপনি জেলে যাবেন।’‌ প্রধান বিচারপতির এই মন্তব্যে দেশজুড়ে সমালোচনার ঝড় শুরু হয়েছিল। নারী অধিকার কর্মীদের একাধিক সংগঠন সহ বিদ্বজনেরা বোবদের পদত্যাগের দাবি জানিয়েছেন। 
তার পরই এদিন বোবদে বলেন, ‘‌এটা বৈবাহিক ধর্ষণের মামলা ছিল না। বেঞ্চের অন্যান্য সদস্যদেরও জিজ্ঞেস করেছি আমি। তাঁরাও মনে করতে পারছেন না। মহিলাদের সর্বোচ্চ সম্মান দেয় এই প্রতিষ্ঠান, বিশেষ করে এই বেঞ্চের সদস্যরা।’‌ সলিসিটর জেনারেল তুষার মেহতাও বলেন, একেবারে অন্য প্রেক্ষিতে ওই মন্তব্য করেছেন প্রধান বিচারপতি। 

জনপ্রিয়

Back To Top