আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ এটা কোনও শাসক–বিরোধী লড়াই নয়। বরং বুদ্ধিজীবীদের সঙ্গে কেন্দ্রীয় সরকারের লড়াই বলা যায়। ৪৯ জন বুদ্ধিজীবীদের বিরুদ্ধে দেশদ্রোহিতার মামলা করা হয়েছে। যা গণতান্ত্রিক দেশে নজিরবিহীন ঘটনা। আর তারই প্রতিবাদে গর্জে উঠে প্রধানমন্ত্রীকে খোলা চিঠি লেখা হল। এটা অবশ্য দ্বিতীয় চিঠি। আর তালিকায় নাম জুড়ল বিশিষ্ট অভিনেতা নাসিরুদ্দিন শাহ, অভিনেত্রী অপর্ণা সেন, ইতিহাসবিদ রোমিলা থাপার, গায়ক টিএম কৃষ্ণ ও একঝাঁক ব্যক্তিত্ব। চিঠিতে তাঁরা সাফ জানান, সাম্প্রদায়িক হিংসার বিরুদ্ধে তাঁদের প্রতিবাদ জারি থাকবে। আর এই প্রতিবাদকে জোরালো করতে বিভিন্ন জগতের ব্যক্তিত্বদের আহ্বান জানানো হয়েছে।
কী লেখা হয়েছে চিঠিতে?‌ চিঠিতে লেখা হয়েছে, বুদ্ধিজীবীদের এভাবে হেনস্থা করার বিরুদ্ধে তীব্র প্রতিবাদ জানানো হচ্ছে।

গণপিটুনি, বাক–স্বাধীনতা খর্ব করা এবং নাগরিকদের হেনস্থা করার মতো ঘটনায় প্রত্যেকদিন সরব হওয়া উচিত। গণপিটুনির ঘটনায় প্রতিবাদ জানিয়ে বুদ্ধিজীবীরা প্রধানমন্ত্রীকে যে চিঠি লিখেছেন, তা কী দেশদ্রোহিতার কাজ? চিঠিতে প্রশ্ন তুলেছেন নাসিরুদ্দিন শাহ–সহ অন্যান্যরা। 
উল্লেখ্য, গত ৭ অক্টোবর ওই চিঠি লেখা হয়েছে বলে সূত্রের খবর। গত জুলাই মাসে সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের ওপর ক্রমাগত হিংসার ঘটনার প্রতিবাদে প্রধানমন্ত্রীকে খোলা চিঠি দেন ৪৯ জন বুদ্ধিজীবী। অপর্ণা সেন, কৌশিক সেন, সৌমিত্র চ্যাটার্জি, আদুর গোপালকৃষ্ণন, রামচন্দ্র গুহ প্রমুখ। আর গত সপ্তাহে বিহারের মুজফফরপুরে তাঁদের বিরুদ্ধে দেশদ্রোহিতার অভিযোগে এফআইআর করা হয়েছে।

জনপ্রিয়

Back To Top