আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ হাজার হাজারি কিলোমিটার দূরে ইতালির তাস্কানির রিসর্টে নিজের স্বপ্নের বিয়ের ডেস্টিনেশন বেছে নিয়েছিলে বিরাট–অনুষ্কা। বিদেশে বিয়ে হলেও বাকি সবই কিন্তু ছিল ভীষণভাবে দেশি।  জানেন এই এলাহি আয়োজনের নেপথ্যে কে ছিলেন?‌ একেবারে দেশি গার্ল। লখনউয়ের বাসিন্দা দেবিকা নারাইন। তাঁর স্বামী জোসেফ রাধিককে দেওয়া হয়েছিল বিয়ের ছবি তোলার বরাত। দেবিকার বাবা জানিয়েছেন, বিয়েবাড়ি সাজানোর বরাত দেওয়ার সময় বিষয়টি ভীষণভাবে গোপন রাখতে বলা হয়েছিল। সেকারণেই বিরাট অনুষ্কার বিয়ের পরেই দেবিকা তাঁদের ছবি টুইট করে নিজের ডিজাইন করার খবরটি প্রকাশ করেন।  বিয়ে বাড়ির সাজানোর জন্য প্রায় সপ্তাহ খানেক আগে থেকেই ইতালি যাওয়া আসা করতেন তিনি। কিন্তু বিষয়টি যাতে গোপন থাকে সেজন্য বাড়িতে কখনও বলতেন রোমে গিয়েছেন, কখনও বলতেন প্যারিসে গিয়েছিলেন।  পরিবারের লোকেরাও জানতেন না সে কথা। সোমবার সকালে বিরাট–অনুষ্কার বিয়ে হয়ে যাওর পর ঠাকুমাকে দেবিকা জানান, যে ইতালিতে এই বিয়ের যাবতীয় ডিজাইন তাঁর এবং তাঁর কোম্পানির করা।
ওয়েডিং ডিজাইনার হিসেবে দেবিকা এখন সফল হলেও একটা সময় ছিল যখন তিনি সাংবাদিক হতে চাইতেন। লখনউয়ের লরেটো কনভেন্ট ইন্টারমিডিয়েট কলেজ উচ্চমাধ্যমিক পাস করেন ২০০৬ সালে। তার পরে লখনউয়েরই লেডি শ্রীরাম কলেজ ইংরেজিতে স্নাতক হন। কলেজে পড়ার সময় থেকেই ওয়েডিং প্ল্যানিংয়ের দিকে মন দিতে শুরু করেন দেবিকা। তিন বছর ধরে দেশের একাধিক নামী ওয়েডিং প্ল্যানিং এবং ডিজাইন কোম্পানির সঙ্গে কাজ করেছেন তিনি। মাত্র চার বছর আগেই নিজের ব্যবসা শুরু করেন। ছোট্ট একটি ভাড়ার ঘর আর একটি টেবিল নিয়ে শুরু হয়েছিল দেবিকার ব্যাবসা। তার পরে পরেই বিয়ে করেন পুরস্কার জয়ী ফটোগ্রাফার রাধিককে। দু’‌জনের যুগলবন্দীতে বাড়তে থাকে ব্যবসা। বিরুষ্কার বিয়ে ডিজাইনের বরাতটা তাঁদের কাছে বিশেষ বলে জানিয়েছেন। তবে শুধু বিরুষ্কার বিয়েই নয় এর আগে ক্রিকেটার রবীন উত্থাপা, দীনেশ কার্তিকের বিয়েও ডিজাইন করেছেন দেবিকা। ‌‌

 

 

একদিকে বিরাট অনুষ্কা। অন্যদিকে দেবিকা ও রাধিক।

জনপ্রিয়

Back To Top