Food Delivery: ড্রোনের সাহায্যে দ্রুত পৌঁছে যাবে ওষুধ থেকে নিত্যপ্রয়োজনীয় সামগ্রী! উদ্যোগ সুইগির

আজকাল ওয়েবডেস্ক: দৈনন্দিন জীবনে ব্যস্ততা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে অনলাইনে শপিং করতেই বেশি স্বচ্ছন্দবোধ করেন অধিকাংশ মানুষ।

দেশে সুইগি বা জোম্যাটোর মতো সংস্থার অ্যাপের সাহায্যে অনলাইনেই অর্ডার করে ঘরে বসে খাবার পেয়ে যান সকলে। এবার শুধুমাত্র খাবার নয়, ওষুধ থেকে নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিস, এমনকী মুদির দোকানের সামগ্রীও কয়েক মিনিটের মধ্যে ঘরের দরজায় পৌঁছে দেবে সুইগি। তাও আবার ড্রোনের সাহায্যে। 

এই উদ্যোগটি বাস্তবায়নের জন্য দীর্ঘদিন ধরেই প্রস্তুতি চলছিল। একাধিকবার ড্রোন ব্যবহার করে ওষুধ, খাবার পৌঁছে দেওয়ার কাজ করা হয়েছে। গত বছরের ডিসেম্বরে তিনশোর বেশি ড্রোনের মাধ্যমে ট্রায়াল করা হয়। অবশেষে চলতি বছরে মে মাসের প্রথম সপ্তাহ থেকেই শুরু হচ্ছে এই পরিষেবা। তবে প্রথমেই ভারতের সব শহরেই এই প্রকল্প শুরু করা যাবে না। আপাতত বেঙ্গালুরু এবং দিল্লিতে ড্রোনের সাহায্যে নিত্যপ্রয়োজনীয় সামগ্রী পৌঁছে দেওয়ার কাজ শুরু করবে সুইগি। 

তবে এই ড্রোন-ডেলিভারি পরিষেবাটি একেবারে সরাসরি গ্রাহকের ঘরে পণ্য পৌঁছে দেবে না। বরং তা দোকান থেকে পণ্য নিয়ে পৌঁছবে ডার্ক স্টোরে। ডার্ক স্টোর হল এমন এক জায়গা যা গ্রাহকের বাড়ির কাছে। সেখান থেকে পণ্য সংগ্রহ করে গ্রাহকের বাড়ি পৌঁছে দেবেন ডেলিভারি পার্সন। গত সপ্তাহে একটি ব্লগপোস্টে সুইগি স্পষ্ট জানিয়েছে, এতে কোনও ভাবেই কোনও ডেলিভারি পার্সনের চাকরি যাবে না। কারণ, বাড়ি বাড়ি পণ্য পৌঁছে দেওয়ার কাজ করবেন তাঁরাই। ড্রোনের সাহায্যে শুধুমাত্র চটজলদি জিনিসপত্র নিয়ে আসার কাজ হবে। 

আকর্ষণীয় খবর