আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ বিশ্ববন্দিত ডিজাইনার তিনি। সব্যসাচী মুখার্জির খ্যাতি অবশ্যই শাড়ি ডিজাইনিংয়ে তাঁর দক্ষতার কারণেই। বিরাট অনুষ্কার বিয়েতেও কনের শাড়িটি তাঁর হাতেই তৈরি। তিনিই একটি আমেরিকার বিশ্ববিদ্যালয়ে বক্তব্য রাখতে গিয়েছিলেন। আর সেখানেই একগুচ্ছ মহিলা ছাত্রীদের অনুরোধে এই মন্তব্য করলেন। 
শ্রোতাদের মধ্যে থেকেই একজন তাঁকে প্রশ্ন করেছিলেন, ‘‌শাড়ি বিষয়টি ভালো। কিন্তু পরতে খুব অসুবিধায় পরে আজকের প্রজন্মের মেয়েরা। এই সমস্যা এড়াতে কী করা যায়?‌’‌ সেই প্রশনের উত্তরেই সব্যসাচী জানান, অসুবিধায় পড়ার কোনও প্রশ্নই আসে না। আর ভারতীয় হিসাবে তো শাড়ি অবশ্যই পড়তে হবে। এর ভারতীয় নারী হিসাবে কেউ যদি বলেন যে তিনি শাড়ি পরতে পারেন না, তাহলে তাঁর লজ্জা হওয়া উচিত। ভারতীয় পরিচয় দিয়েও এই কথা বলা খুবই লজ্জার। এই কথা শোনার পরেই হাততালিতে ফেটে পড়ে গোটা হল। উপস্থিত সকলেই সব্যসাচীকে স্বাগত জানান। 
এর পাশাপাশি, তাঁকে একজন প্রশ্ন করেছিলেন, কেন শাড়ি নিয়ে কাজ করতে শুরু করেছিলেন তিনি। উত্তরে সব্যসাচী জানান, শাড়ি বিশ্ববন্দিত একটি পোশাক। ভারতীয় সংস্কৃতির সঙ্গে শাড়ির দীর্ঘ যোগ রয়েছে। তাই তিনি আগ্রহ ভরে এই কাজটি শুরু করেছিলেন। 
এর মাঝেই ওঠে ছেলেদের ধুতি পরার প্রসঙ্গ। কিছুটা হতাশা নিয়েই সব্যসাচী বলেন, ভারতীয় সংস্কৃতিতে শাড়ি এখনও জনপ্রিয় থাকলেও ধুতি একেবারেই জনপ্রিয়তা হারিয়েছে। বলা ভাল, ভারতীয় পুরুষরাই এখন আর ধুতি পরতে চান না। সেই জন্যই ধুতির স্টাইল এখন মৃত প্রায়। 

জনপ্রিয়

Back To Top