আজকাল ওয়েবডেস্ক: সাধারণত যেকোনও ফল খাওয়ার পর, বীজটা সকলে ফেলেই দেন। আমলকির ক্ষেত্রেও তাই। কিন্তু আমলকি বীজের উপকারিতা জানলে, এবার থেকে ফেলে দেওয়ার আগে দু'বার ভাববেন। কারণ বিশেষজ্ঞরা জানাচ্ছেন অতিরিক্ত ভ্যাজাইনাল ডিসচার্জ বা সাদাস্রাবের সমস্যা থাকলে, সমাধান মিলবে আলমকির বীজে। সাদাস্রাব সমস্যার নয়। কিন্তু অতিরিক্ত হলে, সেটা অস্বস্তির কারণ হয়ে দাঁড়ায় বহু মেয়েদের। কিন্তু এবার আমলকি বীজই এই সমস্যার সুরাহা করবে। 

কীভাবে! 

সাদাস্রাব বা লিউকোরিয়া সাদা কিংবা হলুদ রঙের, গন্ধহীন, থকথকে একধরনের ভ্যাজাইনাল ডিসচার্জ। স্বাভাবিকের তুলনায় অতিরিক্ত নির্গত হলে, সেটা ইনফেকশনের কারণে হতে পারে। অথবা ইস্ট্রোজেনের ভারসাম্য নষ্ট হলেও এটি হয়। আমলকি ফলটার মতো বীজেও প্রচুর পরিমাণ অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট থাকে। যা ইনফেকশন কমাতে সাহায্য করে বলে জানাচ্ছেন বিশেষজ্ঞরা। 

কীভাবে খাবেন! 

নুন ছাড়া শুধু ফল খাওয়ার পরামর্শ দিচ্ছেন ডাক্তাররা। আবার কখনও কখনও জুস করেও খেতে পারেন। তাছাড়া বিশেষজ্ঞরা আরও একটি উপায়ের কথা বলেছেন। আমলকির বীজ শুকনো অবস্থায় ব্লেন্ডারে দিয়ে মিহিদানার মতো গুঁড়ো করে নিতে পারেন। আমলকি বীজের গুঁড়োর মধ্যে মধু বা গুড় মিশিয়ে একটা এএয়ারটাইট পাত্রে রেখে দিন। সেটাই প্রতিদিন উষ্ণ জলে মিশিয়ে খালিপেটে খাওয়ার পরামর্শ দিচ্ছেন বিশেষজ্ঞরা। 

তবে সদ্য সার্জারি হলে, অন্তঃসত্ত্বা অবস্থায়, বা ডেলিভারির পরে এটা খেতে মানা করছেন তাঁরা। 

জনপ্রিয়

Back To Top