আজকালের প্রতিবেদন: ‘‌বাঙ্গালিয়ানা’‌— এই একটি শব্দেই যেমন বাঙালির সংস্কৃতি, রুচি, খাদ্যাভ্যাস থেকে পরিধেয়র মান, বিদ্যাচর্চা থেকে তাবৎ আচার–আচরণ স্পষ্ট হয়ে ওঠে, ঠিক তেমনি ‘‌‌আহেলিয়ানা’‌ শব্দটিতে ঐতিহ্যের সঙ্গে উৎসবের নিগূঢ় যোগসূত্রটি মূর্ত হতে কালমাত্র বিলম্ব হয় না। আর দুর্গাপুজোয় বাঙালির তাবৎ উৎসবের উৎস হল মুখে জল আনা খাবার। খাঁটি বাঙালি খাবারের জন্য কলকাতার মানুষের পছন্দ একটি রেস্তোরাঁ, যারা ২৫ বছরেরও আগে থেকে পাঁচতারা পরিবেশে বাঙালি খাবার পরিবেশন করে চলেছে। বাঙালি খাবারের খাঁটি স্বাদ ও মান এদের রান্নায় অতীতের স্বাক্ষর বহন করছে। দুর্গাপুজোর সময় এদের থালি, বিভিন্ন মেনু নিয়ে আলা কার্তে বা বুফে এক অনবদ্য আয়োজন। শুরুতেই অতিথির হাতে তুলে দেওয়া হবে শীতল মধুডাব। তারপর এক এক করে আসবে নিরামিষ বেগুনপোস্ত, পাতুরির পাঁচকাহন, বাহারি আলুর বড়া। যারা আমিষের ভক্ত, তাদের জন্য রয়েছে চিংড়ির চালচিত্র, পদ্মার পাবদা, দইচিংড়ি, কই–‌এর হর–‌গৌরী, পালং মাংস ইত্যাদি, ইত্যাদি। মিষ্টিরও হরেক বৈচিত্র‌্য থেকে বেছে নিন পোস্তর কাটলেট থেকে হিমসুধা (‌মুগলিযুক্ত আইসক্রিম)‌। এবার আমরা পরিবেশন করছি দুটি নতুন থালি— বাচ্চাদের জন্য লক্ষ্মীসোনা থালি, আর বলাইবাহুল্য বড়দের জন্য মাংসের থালি। আপনার স্বাদকোরকের উপযোগী অজস্র ডিস রয়েছে আহেলিতে। চলে আসুন কলকাতায় পিয়ারলেস ইন–‌এর আহেলিতে বা রাজারহাটে অ্যাক্সিস মলে। অক্টোবরের ৪ থেকে ৮— পুজোর এই পাঁচটি দিনে কলকাতার পিয়ারলেস ইন এবং রাজারহাটের অ্যাক্সিস মলের দুই আহেলিতে সম্পূর্ণ স্বতন্ত্র বুফের আয়োজন থাকছে, যেখানে স্টার্টার, মেইন কোরস ও ডেসার্টের থাকবে অজস্র বৈচিত্র‌্য, যার থেকে নিজের পছন্দমাফিক আপনি বেছে নেবেন। আর থালি ও মেনু অনুযায়ী তাবৎ পদ মিলবে লাঞ্চ ও ডিনারে। কলকাতার পিয়ারলেস ইনে দু’‌জনের খাওয়ার খরচ ৩,০০০ টাকা +‌ জিএসটি, আর একজনের বুফের জন্য পড়বে ১,৮৯৫ টাকা +‌ জিএসটি। রাজারহাট আহেলিতে দু’‌জনের খরচ পড়বে ২,৫০০ টাকা +‌ জিএসটি এবং একজনের বুফের জন্য লাগবে ১৪৯৯ টাকা‌ +‌ জিএসটি। সময়:‌ বেলা ১২টা থেকে বিকেল সাড়ে ৩টে, সন্ধে ৭টা থেকে রাত ১১টা। সিট রিজার্ভ করার জন্য কলকাতা পিয়ারলেসের আহেলিতে ফোন করুন ৯৮৩১৭–‌৮০৪০৩, রাজারহাটে ৬২৯০৮–‌২০২২৯।

জনপ্রিয়

Back To Top