আজকাল ওয়েবডেস্ক: সাদা–কমলার মাখামাখি সহবাস। ওপর ভাসছে ঘি, কাজু, আমন্ড। ম ম করছে এলাচের গন্ধ।‌ শীতকাল মানেই শেষপাতে গাজরের হালুয়া। সেই বিয়েবাড়ি হোক বা বাড়ি। খেতে যেমন ভালো, এই গাজরের হালুয়ার গুনাগুনও কিন্তু কম নয়। অন্তত পুষ্টিগুনের জন্য শীতকালে একবার হলেও গাজরের হালুয়া খেতেই হবে।
• গাজরের গুন:‌ শীতকালে সর্দিকাশি লেগেই থাকে। এর মোকাবিলার জন্য রোগপ্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ানো প্রয়োজন। এই রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতে সাহায্য করে গাজর। এতে থাকে বেটা ক্যারোটিন, যা ভিটামিন এ–র উৎস। তাছাড়া গাজরে থাকে অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট, যা রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায়। সংক্রমণ রোধ করে।
• দুধের গুন:‌ গাজরের হালুয়ার আর এক প্রধান উপকরণ দুধ। দুধে থাকে ভিটামিন ডি। প্রোবায়োটিক্স এবং ইমিউনোগ্লোবিউলিনও থাকে। এগুলো সবই রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায়। ভাইরাস আক্রমণ রুখে দেয়।
• কম যায় না বাদাম:‌ আমন্ডে থাকে ভিটামিন ই, যা রোগপ্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায়। হালুয়াতে মেশানো হয় এলাচ। এই এলাচে থাকা ভিটামিন সি সর্দি, কাশি দূর করে।
• ওজন কমায়:‌ শীতে ক্যালোরি বার্ন কম হয়। ফলে ওজন বেড়ে যায়। গাজরে খুব কম পরিমাণ ক্যালোরি রয়েছে। ফলে বেশি খেলেও ওজন বাড়ে না। তাছাড়া এটি খেলে অনেকক্ষণ পেট ভর্তি থাকে। গাজরে প্রচুর পরিমাণ ফাইবার থাকে, যা হজমের সমস্যা দূর করতে সাহায্য করে। 
• ত্বকের যত্ন নেবে গাজর: গাজরে‌ বেটা ক্যারোটিনের আকারে ভিটামিন এ থাকে, যা ত্বকের কোষগুলি নিয়মিত প্রতিস্থাপন করে। ফলে ত্বক ভালো থাকে। 
• গাজর ক্যানসার রুখতে সক্ষম:‌ বেশ কিছু গবেষণা বলছে, গাজরে থাকা ক্যারোটিনয়েডস, ফেনোলিকস, পলিঅ্যাসিটাইলিনস, অ্যাসকরবিক অ্যাসিড ক্যানসার রুখতে সক্ষম। 

জনপ্রিয়

Back To Top