আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ ২০২০ কিন্তু পুরোদস্তর অন্য রকম। করোনা, তার জেরে লকডাউন। আর এই কারণে বদলে গেছে মানুষের জীবনযাপন। মানুষ এখন অনেক বেশি ঘরমুখো। ভালো খাবারের জন্যও আর খুব একটা রেস্তোরাঁয় ঢুঁ মারতে আগ্রহী নয়। বরং বাড়িতে রেঁধে খান নিত্যনতুন পদ। 
লকডাউনে সোশ্যাল মিডিয়ায় এই নিয়ে রীতিমতো প্রতিযোগিতা শুরু হয়ে যায়। তবু দেশবাসীর একটি অভ্যাস কিন্তু লকডাউনেও বদলায়নি। করোনাও পাল্টাতে পারেনি বিরিয়ানি–প্রীতি। বাড়িতে বিরিয়ানি যে রাঁধেননি ভারতীয়রা তা নয়, তবু দোকান থেকে অর্ডার করা বন্ধ করেননি।
সুইগির সমীক্ষা বলছে, ২০২০ সালেও দেশবাসী সবথেকে বেশি অর্ডার করেছে বিরিয়ানি। তবে মাটন নয়, চিকেন বিরিয়ানিই তাঁদের বেশি পছন্দের। এক সেকেন্ডে একাধিকবার অর্ডার করা হয়েছে। তার পরেই রয়েছে যথাক্রমে মশলা দোসা, পনির বাটার মশলা, টিকেন ফ্রায়েড রাইস, মাটন বিরিয়ানি। সুইগির ‘‌পঞ্চম বার্ষিকী স্ট্যাটইটস্টিকস’‌। ২০১৯ সালেও সবথেকে বেশি দেশজুড়ে অর্ডার করা হয়েছিল বিরিয়ানিই। 
এই সমীক্ষায় আরও একটি মজার বিষয় ধরা পড়েছে। অনেক ক্রেতা অ্যাপ ডাউনলোড করে প্রথম অর্ডারটাই করেছেন, বিরিয়ানি। চলতি বছর চা আর কফি অর্ডারের প্রবণতাও বেড়েছে। ১১ লক্ষ বার অর্ডার করা হয়েছে চার আর কফি। ২০১৯ সালের তুলনায় এ বছর ফুচকার অর্ডার বেড়েছে। দু’‌ লক্ষ ৪০ হাজার বার বেশি হয়েছে ফুচকার অর্ডার। 
আর বেড়েছে পিঁয়াজের অর্ডার। এ বছর ৭৫ হাজার ১৭৭ কেজি পিঁয়াজ অর্ডার দেওয়া হয়েছে সুইগিতে। কলা, টোনড দুধ আর ধনে পাতাও বহু বার অর্ডার করা হয়েছে। 

জনপ্রিয়

Back To Top