আজকালের প্রতিবেদন: বেআইনিভাবে জল উৎপাদন ও নামী কোম্পানির ব্র‌্যান্ড নকল করলে সেই সংস্থার বিরুদ্ধে ফৌজদারি মামলা দায়ের করা হবে। এ সব সংস্থার বিরুদ্ধে এবার সরাসরি ব্যবস্থা নেবে রাজ্য ও কলকাতা পুলিস। একইসঙ্গে পানীয় জল বা খাদ্য প্রস্তুতকারী কোম্পানিতে দূষণ নিয়ন্ত্রণ পর্ষদের ছাড়পত্র বাধ্যতামূলক করা হল। বুধবার এ কথা জানালেন মেয়র পারিষদ (‌স্বাস্থ্য)‌ অতীন ঘোষ। এদিন কলকাতা পুরসভায় খাদ্য সুরক্ষা দপ্তর, এনফোর্সমেন্ট ব্রাঞ্চের সদস্যদের সঙ্গে বৈঠক করেন মেয়র পারিষদ। পরে তিনি সাংবাদিক বৈঠকে জানান, বেআইনিভাবে জল প্রস্তুত, নামী কোম্পানির নামের অপব্যবহার করে শহরে জলের ব্যবসা চলছে। অভিযান চালিয়ে ৫৫টি জল প্রস্তুতকারী সংস্থার জলে জীবাণু মিলেছে। খাদ্য সুরক্ষা আইন মেনে পুরসভা মামলা করতে পারে। মামলায় জরিমানা, জেলও হতে পারে। তবে এবার থেকে পুরসভা ও খাদ্য সুরক্ষা দপ্তর যৌথ অভিযান চালিয়ে এনফোর্সমেন্ট ব্রাঞ্চে রিপোর্ট জমা দেবে। ফৌজদারি আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা নেবে পুলিস। এদিনের বৈঠকে আইনের বিভিন্ন ধারা নিয়ে পর্যালোচনা করে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেওয়া হল। মার্চ থেকে নিয়মিত অভিযান চালানো হবে যৌথভাবে। তিনি বলেন, এভাবে পানীয় জল প্রস্তুত করে নাম নকল করে বিক্রিকে ক্রিমিনাল অফেন্স হিসেবে গ্রাহ্য করা হবে। আর এর বিরুদ্ধে যাবতীয় ব্যবস্থা নেবে পুলিস। ট্রেড লাইসেন্স, দমকল, এফএসএসআইয়ের ছাড়পত্র যথেষ্ট বলে বিবেচিত হবে না। দূষণ নিয়ন্ত্রণ পর্ষদের অনুমতিও জরুরি।

জনপ্রিয়

Back To Top