আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে এ রকম ব্যবহার হলে সাধারণ মহিলা কতটা সুরক্ষিত?‌ ধর্মতলার মেট্রো চ্যানেলে এই প্রশ্নই আজ তুললেন বিদ্বজন থেকে টলিউডের শিল্পীরা। একযোগে তাঁরা দাবি তুললেন, ফ্যাসিবাদের বিরুদ্ধে সোচ্চার হতে হবে সাধারণ মানুষকেও।
একটি টক শোয়ে অভিনেতা দেবলীনা বলেন, তিনি গোমাংস ভালো রাঁধতে পারেন। সেই নিয়ে তীব্র ট্রোলের শিকার হন। গণধর্ষণের হুমকিও দেওয়া হয়। ত্রিপুরার প্রাক্তন রাজ্যপাল তথাগত রায়ের সঙ্গে সোশ্যাল মিডিয়ায় বচসায় জড়িয়ে একই রকম হুমকি পান অভিনেতা সায়নী ঘোষ। সেসবের প্রতিবাদেই এদিন সরব হন পরিচালক রাজ চক্রবর্তী, সুদেষ্ণা রায়, গৌতম ঘোষ, অভিনেতা কাঞ্চন মল্লিক, কৌশিক সেন, ঋদ্ধি সেন, সায়নী ঘোষ, সোহিনী সেনগুপ্ত, কবি জয় গোস্বামী, শিল্পী শুভাপ্রসন্নরা। 
টেলি–জগত থেকে ছিলেন অভিনেতা শুচিস্মিতা চৌধুরী, শ্রীতমা ভট্টাচার্য। অধ্যাপক অভীক মজুমদার বলেন, ভিক্টোরিয়ায় মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে যা হয়েছে, তা অন্যায়। পরিচালক গৌতম ঘোষ এই প্রসঙ্গে বললেন, ‘‌একটা সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে এই রকম আচরণ ভাবাই যায় না। যাঁরা করলেন, তাঁদের দলের বাকি সদস্যদের কি ভাল লাগল এটা দেখে?’‌
অভিনেতা কৌশিক সেন বললেন, তৃণমূলের থেকেও বড় শত্রু এখন বিজেপি। পরিস্থিতি আরও খারাপ এখন। অভিনেতা ঋদ্ধি সেনের মতে, একটা ইস্যু থেকে নজর ঘোরাতেই এসব করা হচ্ছে। কেন্দ্র সরকার খুব ভালোভাবেই এসব জানে। সভায় উপস্থিত থাকতে পারেননি। কিন্তু চিঠি লিখে অভিনেতাদের গণধর্ষণের হুমকির প্রতিবাদ করেছেন মাধবী মুখোপাধ্যায়। চিঠি লিখে প্রতিবাদ জানিয়েছেন পরমব্রত চট্টোপাধ্যায়ও। 
 

জনপ্রিয়

Back To Top