প্রতিশোধের রাজনীতি বিজেপির, আলাপন প্রসঙ্গে সরাসরি মোদিকেই বিঁধলেন তৃণমূল সাংসদ  

আজকাল ওয়েবডেস্ক: প্রাক্তন মুখ্যসচিব আলাপন ব্যানার্জিকে নিয়ে ফের কেন্দ্র-রাজ্য টানাপোড়েন শুরু হয়েছে। গতকাল কেন্দ্রের তরফে কড়া চিঠি পাঠিয়েছে কেন্দ্রীয় কর্মিবর্গ মন্ত্রক। আলাপনের বিরুদ্ধে আনা হয়েছে শৃঙ্খলাভঙ্গের অভিযোগ। আজ সাংবাদিকদের দুই তৃণমূল সাংসদ সৌগত রায় এবং সুখেন্দুশেখর রায় জানালেন, বিধানসভা নির্বাচনে হেরে গিয়ে এখন প্রতিহিংসার রাজনীতি করছে কেন্দ্র। আইপিএস আইএস অফিসারদের হেনস্থা করা হচ্ছে রাজ্য সরকারের কাজে বাধা দিতে। 
গতকাল চিঠিতে আলাপনকে বলা হয়েছে ৩০ দিনের মধ্যে চিঠির উত্তর না দিলে কিংবা সশরীরে দিল্লি উপস্থিত না হলে একতরফা পদক্ষেপ নেওয়া হবে। কেন্দ্রের কড়া মনোভাব নিয়ে সৌগত রায় এদিন বলেন, ‘প্রতিশোধের রাজনীতি করছে৷ লজ্জাজনক হারের পর বিজেপি রাজ্য সরকারের কাজকর্মকে বিপর্যস্ত করার চেষ্টা চালাচ্ছে৷ আলাপন বন্দ্যোপাধ্যায় করোনা অতিমারির সময় কাজ করছিলেন৷ কেন্দ্রীয় সরকার ঠিক তখনই তাঁর বিরুদ্ধে শৃঙ্খলাভঙ্গের অভিযোগ তুলল৷ আমাদের সবথেকে সৎ আমলাদের ভাল ভাবে কাজ করতে দিচ্ছে না কেন্দ্রীয় সরকার৷’ 
তৃণমূল সাংসদ আরও বলেন, ডিপার্টমেন্ট অফ পার্সোনেল অ্যান্ড ট্রেনিং প্রধানমন্ত্রীর অধীনস্থ দফতর৷ ফলে যা হচ্ছে তা প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশেই হচ্ছে৷ আর তার জেরেই এই নিষ্ঠুর আচরণ চলছে। আর এক সাংসদ সুখেন্দুশেখর রায় জানালেন, আর্থিক তছরুপের অভিযোগ ছাড়া আর কোনও ক্ষেত্রেই একজন অবসরপ্রাপ্ত আইপিএস আধিকারিকের বিরুদ্ধে এরকম বিভাগীয় তদন্ত করা যায় না। সুখেন্দুর কটাক্ষ, এর পর কোন দিন ২০ বছর আগে অবসর নেওয়া আধিকারিকের বিরুদ্ধে তদন্ত শুরু হবে।