আজকাল ওয়েবডেস্ক: কোভিড প্রতিষেধক, কোভ্যাক্সিনের প্রথম দফা শহরে পৌঁছতে পারে এক সপ্তাহের মধ্যেই। তারপরই ন্যাশনাল ইন্সটিটিউট অফ কলেরা এবং এন্টেরিক ডিসিজ বা নাইসেডে কোভ্যাক্সিনের তৃতীয় পর্বের পরীক্ষামূলক প্রয়োগ হতে পারে আগামী মাসের শুরুতে। নাইসেড ছাড়া কলকাতার আর যে হাসপাতালে প্রথম দফা পাঠানো হচ্ছে সেগুলি হল স্কুল অফ ট্রপিক।আল মেডিসিন এবং সাগর দত্ত মেডিক্যাল কলেজ, হাসপাতাল। আইসিএমআর–নাইসেডের ডিরেক্টর শান্তা দত্ত বললেন, নাইসেডে মোট ১০০০ স্বেচ্ছাসেবীর উপর প্রয়োগ করা হবে কোভ্যাক্সিন। সব কিছু ঠিক থাকলে ডিসেম্বরের প্রথম সপ্তাহেই প্রয়োগ শুরু হবে। নাইসেডে অর্ধেক স্বেচ্ছাসেবীকে ইনার্ট প্ল্যাসেবো দেওয়া হবে। বাকিরা প্রতিষেধক দেওয়া মানুষদের উপর নজর রাখবেন। ডিরেক্টর বললেন, অনেকেই পরীক্ষায় উৎসাহ দেখাচ্ছেন। খুব শিগগিরি স্ক্রিনিং করে বাছাই করা হবে স্বেচ্ছাসেবীদের।
স্কুল অফ ট্রপিক্যাল মেডিসিনে কোভোভ্যাক্সের তৃতীয় পর্বের পরীক্ষামূলক প্রয়োগ করা হবে। মার্কিন ওষুধ কোম্পানি নোভাভ্যাক্সের ভারতীয় ওষুধ কোভোভ্যাক্স। নোভোভ্যাক্সের সঙ্গে যৌথ উদ্যোগে এটা তৈরি করেছে সিরাম। সিরাম এবং নোভোভ্যাক্সের সঙ্গেই ট্রপিক্যালে এই প্রয়োগের স্পনসরার আইসিএমআর–ও। ট্রপিক্যালের এথিক্স কমিটি মঙ্গলবার বৈঠকে বসবে পরীক্ষামূলক প্রয়োগের ব্যাপারে সব কিছু সিদ্ধান্ত নিতে। এখানে ১০০ জন স্বেচ্ছাসেবীর উপর প্রয়োগ করা হবে। অনেক চিকিৎসকরাও এগিয়ে এসেছেন। ট্রপিক্যালে কোনও প্ল্যাসেবো দেওয়া হবে না স্বেচ্ছাসেবীদের। সূত্রের খবর, ট্রপিক্যালে হয় কোভোভ্যাক্স অথবা নোভোভ্যাক্সের এনভিএক্স–সিওভি২৩৭৩ প্রয়োগ করা হবে। রাজ্য স্বাস্থ্য সচিব নারায়ণ স্বরূপ নিগম বললেন, ‘‌নাইসেড এবং ট্রপিক্যালে প্রয়োগ প্রক্রিয়া নিশ্চিত হয়ে গিয়েছে, কোভিড প্রতিষেধকের যে কোনওরকম পরীক্ষামূলক প্রয়োগের জন্য আমরা তৈরি।’‌
সাগর দত্ত হাসপাতালে ডক্টর রেড্ডিস্‌ ল্যাব ওষুধ কোম্পানির উদ্যোগে রুশ প্রতিষেধক স্পুটনিক–৫–এর পরীক্ষামূলক প্রয়োগ হবে। ভারতে এই প্রয়োগের জন্য রাশিয়ার সরাসরি বিনিয়োগ তহবিল বা আরডিআইএপ–এর সঙ্গে তারাহাত মিলিয়েছে। তৃতীয় পর্বের প্রয়োগের তদারকিতে আছে বিশেষজ্ঞ দল, জানালেন স্বাস্থ্য দপ্তরের অফিসার। 
সারা দেশে কোভ্যাক্সিনের তৃতীয় দফার স্বেচ্ছাসেবীদের সংখ্যা কমপক্ষে ২৮,৫০০ জন।      

জনপ্রিয়

Back To Top