মিল্টন সেন,হুগলি: ভারতীয় লোকসঙ্গীতের প্রসারে ভারতের তথ্য–সংস্কৃতি মন্ত্রক এবং টেকনো ইন্ডিয়া গ্রুপের যৌথ উদ্যোগে অনুষ্ঠিত হয়ে গেল সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান ‘‌মধু মূর্ছনা’‌। বুধবার সন্ধেয় চুঁচুড়ার টেকনো ইন্ডিয়া গ্রুপ পাবলিক স্কুলে আয়োজিত অনুষ্ঠানে সুদূর মুম্বই থেকে উপস্থিত ছিলেন পদ্মশ্রী সোমা ঘোষ এবং জাতীয় পুরস্কারপ্রাপ্ত পরিচালক শুভঙ্কর ঘোষ। এদিনের অনুষ্ঠানে নাগাল্যান্ড, সম্বলপুর–সহ দেশের একাধিক রাজ্যের লোকশিল্পীরা তাঁদের অনুষ্ঠান পরিবেশন করেন। বাউল সঙ্গীত পরিবেশন করেন শান্তিনিকেতনের গৌতম দাস বাউল। ছিলেন মুম্বই থেকে লোকশিল্পী অনুরূপ মল্লিক‌‌–সহ কলকাতা কলাকেন্দ্রের শিল্পীরা।  
বর্তমান প্রজন্মের ছাত্রছাত্রীদের মধ্যে ভারতীয় লোকসঙ্গীত এবং লোকসংস্কৃতির প্রতি আগ্রহ জাগাতেই দেশব্যাপী এই উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে, জানিয়েছেন পদ্মশ্রী সোমা ঘোষ। সারা দেশের ২২টি রাজ্য জুড়েই উদ্যোগ চালিয়ে যাওয়া হবে। তিনি বলেছেন, ‘‌দেশের সব রাজ্যেই পৃথক লোকসংস্কৃতি রয়েছে। কিন্তু বর্তমান প্রজন্মের অধিকাংশের কাছে সেই বিষয়টা একেবারেই অজানা। অনেকেই সেই বিষয়ে প্রায় কিছুই জানে না। নতুন প্রজন্ম র‌্যাপ আর বলিউড নিয়ে ভাবে। মণিপুর, নাগাল্যান্ড, অসম, উত্তরপ্রদেশ, বাংলা প্রভৃতি রাজ্যের লোকসঙ্গীত থেকেই বলিউডের গান তৈরি হয়। তবে অনেক ক্ষেত্রে তার সঠিক প্রয়োগ হয় না।’‌ পদ্মশ্রী শিল্পী এদিন আরও বলেছেন, ‘‌গান আমাদের জন্ম–মৃত্যুর সঙ্গে জড়িয়ে। লোকসঙ্গীত থেকে দেশের সংস্কৃতির পাঠ পাওয়া যায়। এখনও সিভিল সার্ভিস পরীক্ষায় লোকসঙ্গীত সম্পর্কে প্রশ্ন করা হয়। বাদ্যযন্ত্রের ব্যবহার বা নাম জানতে চাওয়া হয়।’‌ শুভঙ্করবাবু জানিয়েছেন, বেনারস থেকে লোকসঙ্গীত প্রসারে সফর শুরু হয়েছে। সারা দেশ ঘুরে তবেই এই সফর শেষ হবে।’‌ চুঁচুড়া টেকনো ইন্ডিয়া গ্রুপ পাবলিক স্কুলের অধ্যক্ষা প্রদীপ্তা চ্যাটার্জি বলেছেন, ‌স্কুলের ছাত্রছাত্রীদের নিয়ে নববর্ষ পালন করার এমন একটা সুযোগ পাওয়া ভাগ্যের ব্যাপার। টেকনো ইন্ডিয়া গোষ্ঠীর ম্যানেজিং ডিরেক্টর সত্যম রায়চৌধুরীর বদান্যতায় তাঁরা এমন প্রথিতযশা একজন শিল্পীকে তাঁদের স্কুল ক্যাম্পাসে পেয়েছেন।

জনপ্রিয়

Back To Top