আজকাল ওয়েবডেস্ক: ‌চোখে জল, মনে বাড়ি ফেরার একরাশ আনন্দ নিয়ে কলকাতার পথে রওনা দিলেন সাংসদ তাপস পাল। ১৩ মাস জেলবন্দী থাকার পর বাইরের মুক্ত আকাশ দেখার সুযোগ পেলেন রবিবার। বৃহস্পতিবারই রোজভ্যালি–কাণ্ডে ১ বছর ১ মাস পর ওড়িশা হাইকোর্ট থেকে জামিন পেয়েছেন তিনি। ১ কোটি টাকার সিকিউরিটি এবং ২ লক্ষ টাকার বন্ডে তঁার জামিন মঞ্জুর হয়েছে। 
শনিবার ওড়িশার একটি বেসরকারি হাসপাতালে অসুস্থ সাংসদ জানান, তিনি ভাল নেই। তাঁর ৩টি স্নায়ু নষ্ট হয়ে গিয়েছে। শরীরে তাঁর খুব কষ্ট। তাপস পাল হাসপাতালের বেডে শুয়েই বলেন, ‘‌কোমরে ব্যাথা ঠিকমতো উঠে দাঁড়াতে পারি না। ১৩ মাস একটা ঘরের মধ্যে বন্দীর যন্ত্রণা ভয়ানক। জেলে থাকার কারণে ওড়িশাবাসী, আমার রাজ্যের মানুষ ও পরিবার–বন্ধুদের ১ জানুয়ারির শুভেচ্ছা জানাতে পারিনি। এখন সেই শুভেচ্ছা জানাচ্ছি। সকলে খুব ভাল থাকুন।’‌ এই ১৩ মাসে অনেকটা অক্ষম হয়ে পড়েছেন তাপস পাল। শরীরে প্রায় জোর নেই বললেই চলে। আবেগ মিশ্রিত গলায় তাপস পাল বলেন, ‘‌সকলকে আমার প্রণাম ও আন্তরিক ভালবাসা জানাচ্ছি। কোনওদিন কোনও ভুল কাজ করিনি, তবে একটা ভুল কথা বলে ফেলেছিলাম। আসলে ২০১৪ সাল থেকেই শরীরটা ভাল ছিল না। সে সময়ই ভুল কথা মুখ থেকে বলে ফেলি। দেশবাসী ও রাজ্যের মানুষের কাছে তার জন্য ক্ষমা চাইছি। আমি জানি আমার পাশে সবসময় তৃণমূল নেত্রী ছিলেন এবং থাকবেন। এতদিন একা ছিলাম, ভেবেছি আমি কি এমন অপ্রিতীকর কথা বলেছি। তবে বিচারব্যবস্থার প্রতি আমার পূর্ণ আস্থা ছিল। এতদিন পর বাড়ি ফিরতে পেরে খুবই ভাল লাগছে।’‌
রবিবারই স্ত্রী নন্দিতা নিতে আসেন স্বামী তাপস পালকে। ২০১৬ সালের ৩০ ডিসেম্বর রোজভ্যালি–কাণ্ডে তাপস পালকে গ্রেপ্তার করে সিবিআই।

জনপ্রিয়

Back To Top