আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ ফের পিছিয়ে গেল টালা ব্রিজ ভাঙার দিন। এবার লেভেল ক্রসিং তৈরি না হওয়ার জেরে ৩১ জানুয়ারি মধ্যরাত থেকে বন্ধ থাকবে উড়ালপুল। ১ ফেব্রুয়ারি থেকে শুরু হবে ব্রিজ ভাঙার কাজ। ভাঙার কাজ শুরু হবে শ্যামবাজারের দিক থেকে। পূর্ত দপ্তর মনে করছে, নতুন টালা ব্রিজ তৈরিতে খরচ হতে পারে ২৬৮ কোটি টাকা। দেড় বছরের মধ্যে শেষ করতে হবে ব্রিজ তৈরির কাজ। পূর্ত দপ্তর জানিয়ে দিয়েছে যে সংস্থা এই ব্রিজ তৈরি করবে, আগামী ১০ বছর তাদেরকেই ব্রিজ রক্ষণাবেক্ষণের দায়িত্বও নিতে হবে। 
কেন পিছিয়ে গেল? সূত্রের খবর, সময়মতো লেভেল ক্রসিং তৈরি না হওয়াতেই ভাঙার দিন পিছিয়ে যায়। নিজেদের অংশ ভাঙার জন্য চার কোটি টাকা বরাদ্দ করেছে পূর্ত দপ্তর। রেলের অংশ ভাঙার জন্য টেন্ডার ডাকা হয়েছে। পুরো ব্রিজ ভেঙে ফেলতে সময় লাগবে দু থেকে আড়াই মাস। নবান্ন সূত্রে খবর, এপ্রিলের মাঝামাঝি নতুন ব্রিজ তৈরির কাজ শুরু হবে। ইঞ্জিনিয়ারিং প্রোকিওরমেন্ট অ্যান্ড কনস্ট্রাকশন মডেলে তৈরি হবে টালা ব্রিজ। গঙ্গাসাগর মেলার পরেই টালা ব্রিজ ভাঙার কাজ হাতে নেওয়ার কথা জানিয়েছিল পূর্ত দপ্তর। 
উল্লেখ্য, এর আগে একতরফা ভাবে টালা ব্রিজ ভাঙার সিদ্ধান্ত নিয়ে নেয় রাজ্য সরকার। প্রথমে ঠিক হয়, ১৮ জানুয়ারি থেকে টালা ব্রিজ ভাঙার কাজ শুরু হবে। ৮০০ মিটার লম্বা টালা ব্রিজ ভাঙতে খরচ হবে প্রায় ৩০ কোটি টাকা। কিন্তু ফের তা পিছিয়ে গেল। 

জনপ্রিয়

Back To Top