আজকালের প্রতিবেদন: টাকি বয়েজ স্কুলের দ্বিতীয় ক্যাম্পাসে ইংরেজি মাধ্যম চালু হল। বুধবার স্কুলের মির্জাপুর ক্যাম্পাসে বর্ণময় অনুষ্ঠানের মধ্যে দিয়ে এই ইংরেজি মাধ্যম শাখার আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন হয়। ইংরেজি মাধ্যমে পঠনপাঠন শুরু হয়েছে গত ফেব্রুয়ারি মাস থেকে। প্রাক–প্রাথমিক থেকে পঞ্চম শ্রেণি পর্যন্ত পড়ুয়ার সংখ্যা ২০০ জন। পড়ুয়াদের ইংরেজিতে কথা বলা শেখাতে টাকি বয়েজ–এর প্রাক্তনীদের সংগঠন ‘‌টিব্যাক’–এর‌ উদ্যোগে একজন শিক্ষিকা নিয়োগ করা হয়েছিল। পরে পদটি সরকারি অনুমোদন পায়। ইতিমধ্যেই রাজ্য সরকার বাছাই করা কয়েকটি সরকারি স্কুলে পুরোদস্তুর ইংরেজি মাধ্যমে পঠনপাঠন চালু করেছে। কেন ইংরেজি মাধ্যম দরকার, এদিনের অনুষ্ঠানে তা বুঝিয়ে বলেন বক্তারা। ছিলেন মধ্যশিক্ষা পর্ষদের সহ–সচিব পার্থ কর্মকার, কলকাতা প্রাথমিক শিক্ষা সংসদের চেয়ারম্যান কার্তিক মান্না, প্রাক্তন সাংসদ কুণাল ঘোষ, স্কুলের পরিচালন সমিতির সভাপতি অয়ন চক্রবর্তী, কাউন্সিলর রাজেশ খান্না, সোমা চৌধুরি, সমাজসেবী পিয়াল চৌধুরি, প্রাক্তন প্রশাসক সনৎ ঘোষ প্রমুখ। নতুন ভবন, কম্পিউটার ল্যাব, ঠান্ডা জলের মেশিন ও দুঃস্থ ছাত্রদের সাহায্যে সাংসদ তহবিল থেকে ১ কোটি ৭৫ লক্ষ টাকা দিয়েছেন স্কুলের প্রাক্তন ছাত্র কুণাল ঘোষ। তাঁকে অভিনন্দন জানান প্রধান শিক্ষক ও বক্তারা। বিদায়ী প্রধান শিক্ষক পরেশ নন্দকেও সংবর্ধিত করেন টিব্যাকের সদস্যরা। ইংরেজিতে রবীন্দ্রসঙ্গীত, কবিতা ও গানের অনুষ্ঠান করেন ছোটরা। গত ১৩ জানুয়ারি ‘‌টিব্যাক’‌–এর এক অনুষ্ঠানে এসে ইংরেজি মাধ্যম খোলার অনুমোদনের কথা ঘোষণা করেছিলেন শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চ্যাটার্জি। বেহালার বেচারাম চ্যাটার্জি স্ট্রিটে রাজ্যের প্রথম সরকারি ইংরেজি মাধ্যম হাইস্কুল চালু হয়। তখন শিক্ষামন্ত্রী জানিয়েছিলেন, বেসরকারি ইংরেজি মাধ্যম স্কুলে পড়ার খরচ অনেক। তাই সাধারণ পরিবারের মেধাবী পড়ুয়ারা ওই সব স্কুলে পড়তে পারে না। এ বার সরকার পরিচালিত ইংরেজি মাধ্যম স্কুলে কম খরচে সাধারণ পরিবারের ছেলেমেয়েরাও পড়ার সুযোগ পাবে। ‌‌

জনপ্রিয়

Back To Top