সোহম সেনগুপ্ত
করোনা সংক্রমণ ঠেকাতে দু’‌বার সর্বদলীয় বৈঠক হয়েছে বারাসত পুরসভায়। শুধুমাত্র বারাসত পুর অঞ্চলেই পুরপ্রশাসনের পক্ষ থেকে সাত দিন করে দু’‌বার স্থানীয়ভাবে লকডাউন করা হয়। ওই চেষ্টা সত্ত্বেও বারাসতে বেড়েই চলেছে সংক্রমণ। তারই মধ্যে রবিবার বিজেপি–র পূর্ব মণ্ডলের উদ্যোগে বারাসতে অভিযান মাঠে অনুষ্ঠিত হয় ফুটবল টুর্নামেন্ট। কোনওরকম শারীরিক দূরত্ব বিধি না মেনে, মাস্ক না পরে এই টুর্নামেন্টে অংশ নেন খেলোয়াড়রা। উপস্থিত দর্শকদেরও অনেকেই মাস্ক বা দূরত্ববিধির তোয়াক্কা করেননি। 
খেলা দেখতে মাঠে হাজির হন বহু মানুষ। বারাসতের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে ওই মাঠে রবিবার ভিড় জমান বিজেপি–র দলীয় কর্মীরা। মঞ্চে দেখা যায় বিজেপি–র রাজ্য নেতাদেরও। করোনার সময়ে বিধি না মেনে বিজেপি–র এই টুর্নামেন্ট আয়োজনে আতঙ্কিত হয়ে পড়েন স্থানীয়রা। বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে অভিযান মাঠে দর্শকদের ভিড় বাড়তে থাকে। সেই সঙ্গে বাড়তে থাকে করোনা সংক্রমণের আশঙ্কাও। যদিও তাতে কোনও হেলদোল ছিল না বিজেপি নেতা–কর্মীদের। মঞ্চের মাইকে বিজেপি–র পক্ষ থেকে খেলা দেখার জন্য সাধারণ মানুষের কাছে আবেদন জানানো হয়। ভিড়ে ঠেসাঠেসি করে তখন মাঠে খেলা দেখতে দাঁড়িয়ে ছিলেন হাজার খানেক মানুষ। ভিড় উপচে পড়েছে রাস্তাতেও। বারাসত পুরসভার ১১টি ওয়ার্ড থেকে আসা খেলোয়াড়দের পাশাপাশি বহু মানুষ অভিযান মাঠে এসে পড়ায় তখন ভিড়ে ঠাসা অভিযান মাঠ। 
আতঙ্কিত বাসিন্দাদের কাছ থেকে খবর পেয়ে বিকেলে ঘটনাস্থলে যায় পুলিশ। বিধি ভেঙে এই টুর্নামেন্ট আয়োজন করার জন্য চার বিজেপি কর্মীকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। বারাসতের পুলিশ সুপার অভিজিৎ ব্যানার্জি জানান, ওই টুর্নামেন্টে ব্যবহৃত মাইক, বক্স–সহ অনেক কিছুই বাজেয়াপ্ত করা হয়েছে। গ্রেপ্তার করা হয়েছে উদ্যোক্তাদেরও। বিজেপি–র বারাসত জেলার সভাপতি শঙ্কর চ্যাটার্জির যুক্তি, মানুষের মধ্যে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতেই নাকি এই টুর্নামেন্টের আয়োজন। বারাসতের পুরপ্রশাসক সুনীল মুখার্জি জানান, এলাকায় করোনা সংক্রমণ ঠেকাতে মানুষকে সচেতন করার জন্য ধারাবাহিক প্রয়াস চলছে। তার মধ্যেই বিজেপি–র এই টুর্নামেন্টে জমায়েতের জন্য বহু মানুষ করোনায় আক্রান্ত হতে পারেন বলেই আশঙ্কা তাঁর। কোভিড ম্যানেজমেন্ট প্রোটোকল মনিটরিং কমিটির উত্তর ২৪ পরগনা জেলার জয়েন্ট কো–অর্ডিনেটর ডাঃ বিবর্তন সাহা বলেন, ‘‌মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি যখন বাংলাকে করোনার হাত থেকে বাঁচানোর চেষ্টা করছেন, ঠিক সেই সময় বিজেপি যে মানুষের জীবন নিয়ে খেলছে, তার দৃষ্টান্ত হয়ে থাকল বারাসতে বিজেপি–‌র এই টুর্নামেন্ট।’‌‌‌‌
এদিকে বিজেপি‌–র ওই ফুটবল খেলা প্রশাসন বন্ধ করে দিলেও আতঙ্ক কাটেনি অভিযান মাঠ সংলগ্ন এলাকার বাসিন্দাদের মধ্যে। তাঁদের অভিযোগ, করোনা পরিস্থিতির মধ্যে যেভাবে বারাসত–সহ বিভিন্ন এলাকা থেকে এই মাঠে এদিন মানুষের জমায়েত হল, তাতে তাঁদের এখন করোনা সংক্রমণের আতঙ্ক তাড়া করে বেড়াচ্ছে। তাই তাঁদের দাবি, বারাসত ঘোলা কাছারি রোড সংলগ্ন অভিযান খেলার মাঠ ও মাঠ সংলগ্ন এলাকা অবিলম্বে স্যানিটাইজ করা হোক। একই সঙ্গে যারা মানুষের জীবন বিপন্ন করার এই খেলা খেলল, তাদের বিরুদ্ধে মহামারী আইনে ব্যবস্থা নেওয়ার দাবিও জানিয়েছেন বাসিন্দারা। একইসঙ্গে তাঁরা জানান প্রশাসনের অনুমতি নিয়ে এই খেলা হয়েছিল কিনা তাও তদন্ত করে দেখা হোক।  ‌‌

জনপ্রিয়

Back To Top