আজকালের প্রতিবেদন
কোভিড পরিস্থিতিতে রাজ্য সরকারের সহযোগিতায় কলকাতা মেট্রোর ভিড় নিয়ন্ত্রণ ব্যবস্থার প্রশংসা করল আমেরিকার বিশ্ববিদ্যালয়। নিউ নর্মাল পরিস্থিতিতে কলকাতা মেট্রোর ই–‌পাশের মাধ্যমে সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে যাত্রী পরিষেবার কথা তাদের ওয়েবসাইটে উল্লেখ করা হয়েছে। কলকাতা মেট্রোর এই উদ্যোগ অবশ্য ভারতেরও বিভিন্ন প্রান্তে আগেই প্রশংসিত। নিউ নর্মাল পরিস্থিতিতে সামাজিক দূরত্ব বজায় রেকেই এখন ৫০ হাজারেরও বেশি যাত্রী মেট্রো সফর করতে পারছেন।
রাজ্যে মেট্রো পরিষেবা চালুর ক্ষেত্রে সবচেয়ে বড় চ্যালেঞ্জ হয়ে দাঁড়িয়েছিল ভিড় নিয়ন্ত্রণ। কারণ লকডাউনের আগে কলকাতায় প্রতিদিন গড়ে সাড়ে ছয় লাখ মানুষ মেট্রোয় সফর করতেন। কিন্তু কোভিড পরিস্থিতিতে একসঙ্গে ৪০০ জনের বেশি মেট্রো সফর মোটেই কাম্য নয়। এই পরিস্থিতিতে রাজ্য সরকারের সঙ্গে ট্রেন চালানোর আগে আলোচনায় বসেন মেট্রো কর্তারা। রাজ্য পরিবহণ দপ্তর থেকে দেওয়া হয় ই–‌পাশের আইডিয়া। ঠিক হয় যাত্রীরা নির্দিষ্ট সময়ের জন্য ই–‌পাশ সংগ্রহ করে মেট্রোর স্টেশনে প্রবেশ করবেন। সেইমতো রাজ্য সরকারেরই পথদিশা অ্যাপ থেকে মেট্রোর বার–‌কোড–‌সহ ই–‌পাশ ইস্যু করা হয়। কলকাতা পুলিশ সেই ই–‌পাশ দেখেই যাত্রীদের ভিতরে ঢুকতে দিচ্ছেন। স্মার্ট কার্ড পাঞ্চ করে ঢুকতে হচ্ছে প্ল্যাটফর্মে। প্রথম দিকে ভিড় কম হলেও এখন যাত্রীরা অনেকটাই ই–‌পাশে অভ্যস্ত হয়ে উঠেছেন বলে মেট্রো কর্তারা জানিয়েছেন। তাই শুক্রবারই উত্তর–‌দক্ষিণে নোয়াপাড়া–‌কবি সুভাষে যাত্রী সংখ্যা ৫০ ছাড়ায়।  সোমবার থেকে তাই ১১০টির বদলে ১১৬টি ট্রেন চালাবেন মেট্রো কর্তারা। একই সঙ্গে তাঁরা আধ ঘণ্টা বাড়াচ্ছেন মেট্রোর সময়সীমাও। সামাজিক দূরত্ব বিধি মেনে মেট্রো পরিচালনা প্রশংসিত হয়েছে আমেরিকার ক্যালিফোর্নিয়া ইউনিভার্সিটি বার্কলেতে। কোভিড মোকাবিলায় যাত্রী স্বাচ্ছন্দ্যের কথা মাথায় রেখে কলকাতার এই প্রয়াস বিশেষ গুরুত্ব পায়।

জনপ্রিয়

Back To Top