আজকালের প্রতিবেদন
রাজ্যে করোনা সংক্রমণ থেকে সুস্থ হয়েছেন আরও ৪০৪ জন। মোট সুস্থ হয়ে ওঠার সংখ্যা এখনও পর্যন্ত ১১,১৯৩। সুস্থতার হার ৬৪.‌৭৬ শতাংশ। গত ২৪ ঘণ্টায় ১০ হাজারের বেশি টেস্ট হয়েছে। বেশি টেস্ট হওয়ার ফলে বেশি পজিটিভ হচ্ছে। এতে তাড়াতাড়ি চিহ্নিত করে চিকিৎসার আওতায় আনা যাচ্ছে। তাই সুস্থ হওয়ার সংখ্যাও বাড়ছে, জানাচ্ছেন স্বাস্থ্যকর্তারা। এদিন টেস্ট হয়েছে ১০,৫৬৩ জনের। মোট নমুনা পরীক্ষার সংখ্যা ৪ লক্ষ ৬৮ হাজার ৯০৮।
গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ৫৭২ জন। রাজ্যে মোট আক্রান্তের সংখ্যা ১৭,২৮৩। বর্তমানে সক্রিয় করোনা–আক্রান্তের সংখ্যা ৫,৪৫১। নতুন করে আরও ১০ জনের মৃত্যু হয়েছে। রাজ্যে মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়াল ৬৩৯।
কয়েকটি জেলা থেকে কিছুদিন আগে আক্রান্তের সংখ্যা অনেকটাই কমে এসেছিল। কিন্তু তিন–চারদিন ধরে ফের আক্রান্তের সংখ্যা বৃদ্ধি পাওয়ায় নতুন করে চিন্তা বাড়িয়েছে স্বাস্থ্যকর্তাদের। উত্তরবঙ্গেও বেড়েছে আক্রান্তের সংখ্যা। এদিন নতুন আক্রান্তদের মধ্যে কলকাতা ১৭১, উত্তর ২৪ পরগনা ১৩২, হাওড়া ৭৮, মালদা ৫১, দক্ষিণ ২৪ পরগনা ৩৩, হুগলি ৩০ জন–সহ অন্যান্য জেলা থেকে কমবেশি আক্রান্তের সংখ্যা রয়েছে রবিবার স্বাস্থ্য দপ্তরের দেওয়া বুলেটিনে। তবে এদিন আলিপুরদুয়ার, কোচবিহার, কালিম্পং, বীরভূম, ঝাড়গ্রাম— এই ৫টি জেলা থেকে নতুন করে কেউ আক্রান্ত হননি। রাজ্যে যে ১০ জনের এদিন মৃত্যু হয়েছে তার মধ্যে ৭ জনই কলকাতার বাসিন্দা। ফলে কলকাতা নিয়ে যথেষ্ট উদ্বেগে রয়েছে স্বাস্থ্য দপ্তর। জনস্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞদের মতে, কলকাতায় আরও বেশি করে উপসর্গহীন মানুষের অ্যান্টিবডি টেস্ট করলে বোঝা যাবে কত সংখ্যক মানুষের শরীরে করোনার বিরুদ্ধে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা তৈরি হয়েছে। শিলিগুড়িতে আনন্দলোক সোনোস্ক্যানে শুরু হয়েছে করোনার পরীক্ষা। ল্যাবরেটরির সংখ্যা বেড়ে ৫১ হল।
ক্যানিংয়ে এক মহিলার মৃত্যুকে ঘিরে চাঞ্চল্য ছড়াল। অভিযোগ, তিনি করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন। ক্যানিংয়ের বাসিন্দা ৬০ বছরের ওই মহিলা বেশ কয়েক দিন ধরে অসুস্থ ছিলেন। ১৫ জুন তাঁর শরীরে করোনার উপসর্গ ধরা পড়ায় তাঁকে ক্যানিংয়ের কোভিড হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। পরে বেলেঘাটা আই ডি হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়। সেখানেও অবস্থা সঙ্কটজনক হলে পরিবারের সদস্যরা তাঁকে বাইপাসের ধারে একটি বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তি করলে সেখানেই শনিবার রাতে তাঁর মৃত্যু হয়।

জনপ্রিয়

Back To Top