আজকালের প্রতিবেদন: অভিনেতা সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায় হাসপাতাল থেকে বাড়ি ফিরলেন বুধবার। বেলা পৌনে দু‌টো নাগাদ হাসপাতাল থেকে তিনি রওনা দেন। সৌমিত্রবাবু এখন অনেকটাই ভাল আছেন। সুস্থ বোধ করছেন। বাড়িতে কিছুদিন বিশ্রামে থাকার পর স্বাভাবিকভাবে আগের মতো সব কাজকর্ম করতে পারবেন। তবে সংক্রমণ যাতে না হয় সেদিকে খেয়াল রেখে সতর্ক থাকার পরামর্শ দিয়েছেন চিকিৎসকরা। তাঁকে হাসপাতাল থেকে বাড়ি নিয়ে যান কন্যা পৌলোমী, ‘‌মুখোমুখি’‌ নাট্যদলের কর্ণধার বিলু দত্ত। পৌলোমী বলেন, ‘‌কয়েকটা দিন কড়া রুটিনে রাখার পরামর্শ দিয়েছেন চিকিৎসকেরা। সেই মতোই ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’‌
এদিন রুবি জেনারেল হসপিটালে সাংবাদিক বৈঠকে চিকিৎসকরা জানান, দু’‌সপ্তাহ পর সৌমিত্রবাবুকে হাসপাতালে চেক–আপে আসতে হবে। যেহেতু তাঁর বয়স হয়েছে তাই ইনফ্লুয়েঞ্জা ভ্যাকসিন এবং নিয়মিত ইনহেলার নেওয়ার প্রয়োজন রয়েছে। কার্ডিওলজিস্ট ডাঃ সুনীপ ব্যানার্জি বলেন, ‘‌গত ১৪ আগস্ট তিনি নিউমোনিয়া নিয়ে ভর্তি হয়েছিলেন। ক্রিয়েটিনিনের মাত্রাও কিছুটা কম ছিল। শরীরের বিভিন্ন অঙ্গে সংক্রমণের প্রভাব পড়তে শুরু হয়েছিল। অ্যান্টিবায়োটিকে দ্রুত সেরে ওঠেন। আইসিইউ–তে থাকলেও তাঁর কোনওরকম ভেন্টিলেশন কিংবা বাইপ্যাপের প্রয়োজন পড়েনি।’ বক্ষরোগ বিশেষজ্ঞ ডাঃ অরিন্দম মুখার্জি বলেন, ‘‌সৌমিত্রবাবুর আগে থেকেই ক্রনিক অবস্ট্রাকটিভ পালমোনারি ডিজিজ রয়েছে। ফুসফুসে সংক্রমণ হয়েছিল।’‌ ‌‌ ক্রিটিক্যাল কেয়ার মেডিসিনের চিকিৎসক দিব্যদীপ মুখার্জি বলেন, ‘‌ফুসফুসে সংক্রমণ হলে মস্তিষ্ক, কিডনির গন্ডগোল দেখা দেয়। গোটা শরীরেও সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়ে। সৌমিত্রবাবুর ক্ষেত্রে সেরকম কিছু হয়নি। তবে এরপর তাঁকে সাবধান থাকতে হবে। কারণ এধরনের রোগীদের দ্রুত সংক্রমণের আশঙ্কা থাকে।’‌ হাসপাতাল অধিকর্তা (‌চিকিৎসা সংক্রান্ত)‌ ডাঃ ডি পি সমাদ্দার বলেন, ‘‌ তিনি আমাদের সঙ্গে যথেষ্ট সহযোগিতা করেছেন।’‌‌  

জনপ্রিয়

Back To Top