শ্রেয়া পাণ্ডে সক্রিয় রাজনীতিতে আসছেন?‌ কি বলছেন সাধন কন্যা.‌.‌.‌

 আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ রাজ্যের ক্রেতাসুরক্ষা মন্ত্রী সাধন পাণ্ডে অসুস্থ। বাবার যাবতীয় কর্মকাণ্ড সামলাচ্ছেন মেয়ে শ্রেয়া পাণ্ডে। মানিকতলার মানুষের সুবিধা–অসুবিধার দেখভাল করছেন শ্রেয়াই। তাই স্বাভাবিকভাবেই প্রশ্ন উঠেছে, তবে কি সক্রিয় রাজনীতিতে আসছেন সাধন কন্যা। শ্রেয়া অবশ্য একজন সাধারণ কর্মী হিসেবেই নিজের পরিচয় দিতে চান।
৯ বারের বিধায়ক সাধন পাণ্ডে। এখন রাজ্যের মন্ত্রীও বটে। গত ১৭ জুলাই থেকে অসুস্থ হয়ে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন তিনি। কিন্তু মানিকতলার মানুষের জনপরিষেবা পেতে যাতে কোনও অসুবিধা না হয়, তাই নিয়ম করে বাবার অফিসে বসছেন শ্রেয়া। সাধনের চেয়ারের পাশেই একটা ছোট চেয়ার নিয়ে বসে জনতার কথা শুনছেন। আবার কখনও বসছেন কাঁকুড়গাছির বাড়ির অফিসে। কখনও বা গোয়াবাগানের অফিসে বসছেন। দলীয় কর্মসূচীতে কর্মীদের সঙ্গে কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে শামিল হচ্ছেন। ২১ জুলাই মুখ্যমন্ত্রীর ভার্চুয়াল জনসভার বক্তৃতা কর্মীদের সঙ্গে নিয়ে শুনেছেন। দলনেত্রী মমতা ব্যানার্জি ঘোষণা করেছেন, আগামী ১৬ আগস্ট ‘খেলা হবে দিবস’ পালন করবে দল। তাই স্বাধীনতা দিবসের পাশাপাশি ‘খেলা হবে দিবস’–এরও প্রস্তুতি শুরু করে দিয়েছেন শ্রেয়া। খুঁটি পুজো থেকে রক্তদান শিবির, মন্দির উদ্বোধন থেকে মাজারে চাদর দেওয়ার অনুষ্ঠানে সাধনের যে সব আমন্ত্রণ আসছে, সেখানেও বাবার হয়ে যাচ্ছেন তিনি। অভিনয়ের পাশাপাশি নিজস্ব ব্যবসা ছিল শ্রেয়ার। কিন্তু গত নভেম্বরে সাধন অসুস্থ হয়ে পড়েছিলেন। তারপর নিজের পেশাগত দুনিয়া থেকে স্বেচ্ছাবসর নিয়েছেন সাধন কন্যা। তাই খুব স্বাভাবিকভাবেই উঠেছে প্রশ্ন, শ্রেয়া কি সক্রিয় রাজনীতিতে আসছেন। তাঁর স্পষ্ট কথা, একজন কর্মী হিসেবেই তিনি থাকতে চান। দল কোনও দায়িত্ব দিলে, তা পালনের কথা অবশ্য জানিয়েছেন শ্রেয়া।