আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ তাঁদের মধ্যে ‘‌বিভাজন’‌ তৈরির চেষ্টা চলছে। সেই চেষ্টা কিছুতেই সফল হতে দেবেন না। তাই রবিবার বিজেপি–র বিজয়া সম্মিলনীতে যাচ্ছেন না। জানিয়ে দিলেন শোভন চট্টোপাধ্যায়। 
সল্টলেকের পূর্বাঞ্চলীয় সাংস্কৃতিক কেন্দ্রে বিজয়া সম্মিলনীর আয়োজন করে রাজ্য বিজেপি–র সাংস্কৃতিক শাখা। সেখানে আমন্ত্রণ নিয়েই শুরু হয় ঝামেলা। শোভনকে আমন্ত্রণ জানানো হলেও বৈশাখীকে সেই সভায় আমন্ত্রণ জানাননি রাজ্য নেতারা। তাতে চটেন দু’‌জনেই। 
শুক্রবার তাঁদের গোলপার্কের বাড়িতে উপস্থিত হন কেন্দ্রীয় সম্পাদক এবং রাজ্যের সহকারী পর্যবেক্ষক অরবিন্দ মেনন, রাজ্য বিজেপির সাধারণ সম্পাদক (সংগঠন) অমিতাভ চক্রবর্তী সহ কয়েক জন বিজেপি নেতা। রাতভর আলোচনা চলে। জানা যায়, সেই বৈঠক ইতিবাচক ছিল। 
এর পরেও শনিবার ফোন করে ফের শোভনকেই আমন্ত্রণ জানানো হয়। বলা হয়, আমন্ত্রণ পাঠিয়েছেন বিজেপি–র রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ। বাদ পড়েন বৈশাখী। ফোনটি যদিও গেছিল বৈশাখীরই কাছে। তার পরেই ফের বিতর্ক। 
শোভন বলেন, ‘‌আমি অবাক হয়ে গেছি। শুক্রবার রাতেও বিজেপি নেতৃত্ব যাঁর সঙ্গে বৈঠক করে গেলেন, শনিবার তাঁকে আমন্ত্রণ জানানো হল না? কেউ কেউ সম্ভবত আমাদের মধ্যে বিভাজন ঘটানোর উদ্দেশ্য নিয়েই এসব করছেন। কিন্তু এটা আমি মেনে নেব না। আমি বিজয়া সম্মিলনীর অনুষ্ঠানে যাচ্ছি না।’‌ কে চাইছেন বিভাজন ঘটাতে?‌ বৈশাখী জানিয়েছেন, কেন্দ্রীয় নেতৃত্ব এর নেপথ্যে নেই। রাজ্য নেতাদের একাংশই চাইছেন না, তিনি রাজনীতিতে থাকুন। 

জনপ্রিয়

Back To Top