India-West Indies: অচেনা ইডেনে ওয়ান ম্যান আর্মি সুধীর

সম্পূর্ণা চক্রবর্তী: এ কোন ইডেন? এ যে একেবারেই অচেনা! ক্রিকেটের নন্দনকাননে ভারতের ম্যাচ।

কিন্তু রাস্তাঘাট একেবারেই ফাঁকা। কে বলবে আর মাত্র কয়েকঘন্টার মধ্যেই ইডেনের বাইশ গজ দাপাবে বিরাট, রোহিতরা! একেবারেই আড়ম্বরহীন ইডেন। থমথমে রাস্তা। স্টেডিয়ামের সামনে কোনও পুলিশি ব্যারিকেড নেই। দিশাহীন ভাবে কয়েকজন পুলিশ কর্মী ঘুরে বেড়াচ্ছেন। তারই মাঝে দাঁড়িয়ে ইডেন। লেজার লাইটে মিনিটে মিনিটে বদলে যাচ্ছে যার রং। ব্যাস, এইটুকুই। বাইরে থেকে বোঝার উপায় নেই ভারত-ওয়েস্ট ইন্ডিজ টি-২০ সিরিজের আসর বসছে এখানে। অন্যান্যবার টিম স্টেডিয়ামে ঢোকার সময় ক্রিকেটারদের এক ঝলক পেতে উপচে পড়ে ভিড়। বিরাট, রোহিতদের নামে ওঠে ধ্বনি। কিন্তু বুধবার বিকেলে পুলিশি ঘেরাটোপের মধ্যে দিয়ে চুপচাপ ক্লাব হাউজের পাশের গেট দিয়ে স্টেডিয়ামে প্রবেশ করেন রোহিত, বিরাট, শ্রেয়সরা।

ইডেনের নিস্তব্ধতায় একমাত্র অরেঞ্জ আর্মি সুধীর কুমার চৌধুরী, যিনি সুধীর গৌতম নামে পরিচিত। সারা গায়ে ভারতের পতাকা আঁকা। বুকে লেখা 'মিস ইউ তেন্ডুলকর'। হাতে চিরাচরিত ভারতের বিশাল পতাকা। বিরাটরা ইডেনে ঢোকার সময় রাস্তার উল্টো দিক থেকে ভেসে এল 'ভারত মাতা কি জয়' স্লোগান। সঙ্গে শঙ্খধ্বনি। টি-২০ সিরিজ দেখতে দু'দিন আগেই কলকাতায় হাজির শচীন ভক্ত। উঠেছেন বাঘা যতীনে এক বন্ধুর বাড়িতে। মঙ্গলবার সন্ধেয় ভারতের প্রাক ম্যাচ প্রস্তুতিতেও হাজির ছিলেন সুধীর। ২০০১ সালে ইডেনে প্রথমবার খেলা দেখেছিলেন। ভারত এবং ইংল্যান্ডের একদিনের ম্যাচ ছিল। ক্রিকেটের নন্দনকাননে খেলা দেখার ২০ বছর পূর্তি ভারতের অন্যতম বড় সমর্থকের। তাই দর্শক শূন্য স্টেডিয়ামে ম্যাচ হলেও ইডেনের গ্যালারিতে স্থান পাওয়ার বিষয়ে নিশ্চিত ছিলেন সুধীর। প্রত্যাশা মতো টিকিট মেলে সৌরভ গাঙ্গুলির থেকে। ক্লাব হাউজের আপার টায়ারে দেখা গেল সুধীরকে। ভাগ্যিস তিনি এসেছিলেন। ৬৬ হাজারি ইডেনের ব্যাটন একাই বইলেন বিহারের বাসিন্দা। তিনিই যে আজ রোহিতদের ওয়ান ম্যান আর্মি।

ছবি: অভিষেক চক্রবর্তী

আকর্ষণীয় খবর