আজকালের প্রতিবেদন- টানা গরমে স্বস্তি দিল রাতের কালবৈশাখী। রাতে বৃষ্টি হল কলকাতা–সহ আশপাশের জেলায়। কলকাতায় ঝড়ের গতি ছিল ঘণ্টায় ৫৭ কিলোমিটার। বাঁকুড়া, পুরুলিয়া, বীরভূম, মুর্শিদাবাদ, পূর্ব বর্ধমান, মালদায় সন্ধের পর একপশলা বৃষ্টি হয়। সঙ্গে ঝোড়ো হাওয়া। প্রবল ঝড়ে শান্তিনিকেতনে বিদ্যুতের তার ছিঁড়ে বিভ্রাট হয়। রাতে বৃষ্টি নামে কলকাতায়। সঙ্গে ঝোড়ো হাওয়া। দিনভর টানা গরমের পর বৃষ্টিতে স্বস্তি মেলে। রাতের তাপমাত্রাও বেশ খানিকটা কমে যায়। আবহাওয়া দপ্তর জানিয়েছে, আজ, মঙ্গলবারও দক্ষিণবঙ্গের কোথাও কোথাও বিক্ষিপ্ত বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে। হতে পারে বজ্রবিদ্যুৎ–সহ বৃষ্টি। উত্তরবঙ্গে কিন্তু আগামী কয়েক দিন বৃষ্টি হবে।
এদিকে, সোমবার রাত দশটা নাগাদ বৃষ্টির সময় বাজ পড়ে রাজারহাট বৈদিক ভিলেজের ইকো–কটেজে আগুন লেগে যায়। দমকলের দুটি ইঞ্জিন রাত সাড়ে এগারোটা নাগাদ আগুন আয়ত্তে আনে। কটেজগুলি মূলত সহজদাহ্য জিনিসে তৈরি হওয়ায় দ্রুত আগুন ছড়িয়ে পড়ে। কেন আগুন, খতিয়ে দেখছে দমকল। ‌‌‌‌‌‌‌
গত সপ্তাহের শেষের দিকে ঝাড়খণ্ড, বিহার থেকে ‌আসা গরম হাওয়ায় পশ্চিমের জেলাগুলিতে তৈরি হয়েছিল তাপপ্রবাহের পরিস্থিতি। সোমবার পরিস্থিতির বদল হয়। গরম থাকলেও সর্বোচ্চ তাপমাত্রা কিছুটা কমে। তবে সর্বনিম্ন তাপমাত্রা বেশি থাকায় রাতে গুমোট হচ্ছিল। কলকাতায় এদিন সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছিল ৩৬.২ ডিগ্রি সেলসিয়াস, সর্বনিম্ন ২৮.‌৮। ব্যবধান ৭ ডিগ্রির কিছু বেশি। পশ্চিমের জেলাগুলিতেও সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ৩৮ থেকে ৩৯ ডিগ্রির  আশপাশে ছিল । 
আবহাওয়া দপ্তর জানিয়েছে, পূর্ব বিহার ও সংলগ্ন ঝাড়খণ্ড অঞ্চলে একটি ঘূর্ণাবর্ত দানা বেঁধেছে। সেটির প্রভাবেই দক্ষিণবঙ্গে জলীয় বাষ্প বেড়েছে। তাতে উত্তরবঙ্গে আগামী কয়েক দিন বৃষ্টি হতে পারে। মঙ্গলবার দক্ষিণবঙ্গে বিক্ষিপ্ত বৃষ্টির সম্ভাবনা। বইতে পারে ঝোড়ো হাওয়া।
মৌসম ভবন জানিয়েছে, ঝড়বৃষ্টি হলেও দিনে গরম কমবে না। রাতের তাপমাত্রা কমতে পারে। তাতে কিছুটা স্বস্তি মিলবে। ঝড়বৃষ্টি কেটে গেলে দক্ষিণবঙ্গে ফের চড়তে পারে তাপমাত্রা। 

 

‌গরমের দুপুরে স্বস্তির গঙ্গাস্নান কচিকাঁচাদের। হুগলির চুঁচুড়ার ময়ূরপঙ্খী ঘাটে। সোমবার। ছবি:‌ পার্থ রাহা

‌‌

জনপ্রিয়

Back To Top