‌আজকালের প্রতিবেদন‌: রাজ্যের রেলপ্রকল্প নিয়ে কেন্দ্রীয় সরকারের বঞ্চনা ও বিমাতৃসুলভ আচরণের প্রতিবাদে বিধানসভায় সর্বসম্মতিতে নিন্দাপ্রস্তাব গৃহীত হল বৃহস্পতিবার। পরিষদীয় মন্ত্রী পার্থ চ্যাটার্জি এদিন সভাকে জানিয়েছেন, এই নিন্দাপ্রস্তাব কেন্দ্রের কাছে পাঠিয়ে দেওয়া হবে। রাজ্য সরকার আরও বড় লড়াইয়ের পথে যাবে। কেন্দ্রীয় বঞ্চনার বিরুদ্ধে এই লড়াইয়ে সর্বতোভাবে পাশে থাকার প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন বিধানসভার দলনেতা আবদুল মান্নান ও বাম পরিষদীয় নেতা সুজন চক্রবর্তী। সভায় হাজির থেকে কোনও মতামত প্রকাশ না করলেও, কোনও বিরোধিতা করেননি বিজেপি–‌র দিলীপ ঘোষ। সম্প্রতি কেন্দ্রের বাজেটে রাজ্যের চালু রেলপ্রকল্পে বরাদ্দ অর্থ এতটাই ছঁাটাই করেছে যে জোকা–‌বিবাদী বাগ এবং ইস্ট–‌ওয়েস্ট মেট্রোর মতো কয়েকটি প্রকল্পের কাজ একেবারে বন্ধ হয়ে যেতে পারে বলে সভাকে জানিয়েছেন মন্ত্রী পার্থ চ্যাটার্জি। তিনি বলেন, রেলমন্ত্রী থাকাকালীন মমতা ব্যানার্জি এ রাজ্যের জন্য বহু প্রকল্প চালু করেছিলেন। তার বেশিরভাগ কাজ অনেকদূর এগিয়ে গেছে। জোকা মেট্রোর কাজ উদ্বোধন করার সময় ঘোষণা করেছিলেন, তিন বছরের মধ্যে শেষ করবেন। তিনি মন্ত্রিত্ব থেকে সরে যাওয়ার পর কেন্দ্রের বিমাতৃসুলভ আচরণে এই প্রকল্পের কাজ কবে শেষ হবে তা বোঝা যাচ্ছে না। মন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম বলেন, এখনকার কেন্দ্রীয় সরকার চায় সবাই আরএসএস–এর নীতিতে চলুক। আমাদের মুখ্যমন্ত্রী যেহেতু কেন্দ্রীয় সরকারের সাম্প্রদায়িকসুলভ আচরণ–‌সহ অনেক কিছুর নিন্দা করছেন, প্রতিবাদ করছেন, তাই কেন্দ্র আমাদের জব্দ করার জন্য কেন্দ্রীয় প্রকল্পের অর্থ ছাঁটাই করছে। সুজন চক্রবর্তী বলেন, আজ নয়, স্বাধীনতার পর থেকেই এই রাজ্য নানাভাবে কেন্দ্রীয় বঞ্চনার শিকার হয়েছে। আমরা বরাবরই সেই অন্যায়ের বিরুদ্ধে লড়াই করেছি। আজও এই সরকারের লড়াইয়ের পাশে আছি। কেন্দ্রীয় বাজেটে যে এই সব প্রকল্পের বরাদ্দ অর্থ বাদ পড়তে পারে, সেই আশঙ্কার কথা জানিয়ে গত ২০ জানুয়ারি মুখ্যমন্ত্রীকে আমি চিঠি লিখেছিলাম। তবে এই প্রসঙ্গে একটা কথা বলি, বামফ্রন্ট সরকারের আমলে কেন্দ্রীয় সরকারের বঞ্চনার বিরুদ্ধে লড়াইয়ে এখনকার সরকারি দল আমাদের পাশে থাকেনি। আবদুল মান্নান ও মনোজ চক্রবর্তী রাজ্য সরকারকে কোন প্রকল্পে কত টাকা ছাঁটাই হয়েছে তার স্পষ্টভাবে একটি তালিকা প্রকাশ করতে বলেন। তাতে লড়াইয়ে সুবিধে হবে বলেও জানান।‌‌ মান্নান বলেন, কোনও ছুতমার্গ না রেখেই জনগণের স্বার্থে  তৃণমূলের সঙ্গে সহযোগিতা করতে কোনও আপত্তি নেই। রাজ্যকে প্রকৃত অর্থে কেন্দ্র বঞ্চনা করেছে। তাই বিধানসভায় এদিন সরকারের আনা প্রস্তাবে কোনও বিরোধিতা করিনি। ৮টি সংশোধনী দিয়েছি। সেটা প্রস্তাবে রাখা হয়েছে। মেট্রোর কাজও বন্ধ করার পরিকল্পনা চলছে।‌
 

জনপ্রিয়

Back To Top