আজকাল ওয়েবডেস্ক: লাইনে দাঁড়ানো নিয়ে অশান্তি। তা থেকে বচসা এবং হাতাহাতি। শেষপর্যন্ত কামড়ে একজনের কানের একটা অংশ ছিঁড়েই নিল আরেকজন। তড়িঘড়ি আহতকে নিয়ে যাওয়া হল হাসপাতালে। চিকিৎসকরা জোড়া দিলেন কান। খবর গেল পুলিশের কাছে। শুরু হল অভিযুক্তের বিরুদ্ধে নতুন একটি মামলা। রবিবার বিকেলে ঘটনাটি ঘটেছে প্রেসিডেন্সি সংশোধনাগারে। আহত আবাসিক মহম্মদ সুলতান এইমুহুর্তে এসএসকেএম হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। অভিযুক্ত মহম্মদ গোলাপকে আলাদা করে রেখেছে সংশোধনাগার কর্তৃপক্ষ। 
কারাদপ্তর সূত্রে জানা গেছে, রবিবার সন্ধেয় এই ঘটনাটি ঘটেছে। দুই আবাসিকই জালনোট পাচারের দায়ে সাজাপ্রাপ্ত। ওইদিন বাকি আবাসিকদের সঙ্গে এই দু’‌জনও লাইনে দাঁড়িয়েছিল। আচমকা দু’‌জনের মধ্যে বিবাদ শুরু হয়। এরপর হাতাহাতি শুরু হলে বাকিরা ছাড়াতে এগিয়ে এলেও ততক্ষণে সুলতানের ডান কান গোলাপের দাঁতের তলায়। যন্ত্রণায় চিৎকার করছে সুলতান। জোর করে সরিয়ে দেওয়ার পর দেখা যায়, গোলাপের মুখে সুলতানের কানের কিছুটা অংশ ঝুলছে। সময় নষ্ট না করে ওই ছেঁড়া কান–সহ তাকে নিয়ে যাওয়া হয় হাসপাতালে। সেখানেই চিকিৎসকরা তার কান অপারেশন করে জোরা লাগিয়ে দেন। স্থানীয় হেস্টিংস থানায় ঘটনাটি জানিয়েছে প্রেসিডেন্সি কর্তৃপক্ষ।
 

জনপ্রিয়

Back To Top