আজকাল ওয়েবডেস্ক:‌ অবশেষে পঞ্চসায়র গণধর্ষণকান্ডের কিনারা করল পুলিস। অভিযুক্ত এক ট্যাক্সিচালক গ্রেপ্তার হয়েছে। বাজেয়াপ্ত করা হয়েছে তার গাড়িটি। আটক করা হয়েছে আরেক ট্যাক্সিচালককে। শনিবার রাতে নরেন্দ্রপুরের কাঠিপোঁতা অঞ্চল থেকে উত্তম রাম নামে ওই ট্যাক্সিচালককে গ্রেপ্তার করেছে পুলিস। পুলিসের দাবি, জেরায় ধৃত যুবতীকে ধর্ষণের কথা স্বীকার করেছে। পুলিস জানিয়েছে, জেরায় উত্তম বলেছে, ঘটনার দিন নিউ গড়িয়া স্টেশনের কাছে ট্যাক্সিতে বসে যখন সে মদ্যপান করছিল তখন নির্যাতিতা যুবতীকে বৃদ্ধাবাস থেকে বেরতে দেখে পিছু নেয়। যুবতী কিছু দূর গিয়ে অজয়নগরের কাছে একটি গাড়িতে ওঠেন। উত্তমও ট্যাক্সিতে ওই গাড়ির পিছু করতে থাকে। যুবতী বেশ কিছু দূর গিয়ে হাইল্যান্ড পার্কের কাছে ওই গাড়ি থেকে নেমে ইএম বাইপাসের দিকে এগোতে থাকেন। সেসময় উত্তম ট্যাক্সি নিয়ে তাঁর দিকে এগিয়ে গেলে তাকে নিজেই হাত দেখিয়ে থামান মহিলা। উত্তম তাঁকে বৃদ্ধাবাসে পৌঁছে দেওয়ার আশ্বাস দিয়ে গাড়িতে তোলে তারপর ধর্ষণ করে কাঠিপোঁতার সামনে নামিয়ে দিয়ে চম্পট দেয়। স্থানীয় বাসিন্দারা যুবতীকে দেখে নরেন্দ্রপুর থানায় খবর দিলে পুলিস গিয়ে তাঁকে উদ্ধার করে প্রথমে থানায় নিয়ে যায়। সেখান থেকে তাঁকে সোনারপুরের একটি হোমে নিয়ে যাওয়া হয়। সোনারপুরেই তাঁর প্রাথমিক চিকিৎসা হয়। সেখান থেকে ট্রেনে বালিগঞ্জে নেমে গড়িয়াহাটে তাঁর মামাবাড়ি যান। কিন্তু যুবতী গাড়িতে ফিরোজ নামে আরেকজনের উপস্থিতির অভিযোগ করেছিলেন। তার খোঁজ চলছে। এপর্যন্ত প্রায় ১৫০টি রাস্তার সিসিটিভি ফুটেজ খতিয়ে দেখে যুবতী প্রথমে যে ট্যাক্সিতে উঠেছিলেন তার চালককে আটক করেছে পুলিস। তদন্ত চলছে। সব সিসিটিভি ফুটেজ ফের খতিয়ে দেখা হচ্ছে। জেরা করা হচ্ছে উত্তম সহ দুজনকেই।  ‌     

জনপ্রিয়

Back To Top