আজকালের প্রতিবেদন: প্রথম দশের ৫১ জনের প্রকাশিত মেধা–‌তালিকায় কলকাতায় একমাত্র জায়গা করে নিল যাদবপুর বিদ্যাপীঠের ছাত্র সোহম দাস। মোট ৬৮১ নম্বর পেয়ে আরও ১৪ ছাত্রছাত্রীর সঙ্গে মেধা–‌তালিকার দশম স্থানে জায়গা করে নিয়েছে সে। অঙ্কে একশোয় একশো পেয়েছে সোহম। ভূগোলে তার প্রাপ্ত নম্বর ৯৯। ইংরেজি, ভৌতবিজ্ঞান, জীবনবিজ্ঞান— এই তিন বিষয়ের প্রতিটিতে পেয়েছে ৯৮ করে। ইতিহাস ও বাংলায়, দুটিতেই পেয়েছে ৯৪। পরীক্ষার এই ফলে খুব একটা অবাক হয়নি সোহম। তার হিসেবে, ৬৭০ থেকে ৬৮০ নম্বর পাওয়া নিশ্চিত ছিল। তবে দশম স্থানে জায়গা পাওয়ায় আনন্দে কিছুক্ষণ বাক্‌রুদ্ধ হয়ে পড়েছিলেন সোহমের বাবা সঞ্জিতকুমার দাস ও মা মিতালি। জীবনবিজ্ঞান প্রিয় বিষয় হলেও, ভবিষ্যতে সিভিল ইঞ্জিনিয়ার হতে চায় সোহম। লক্ষ্যে পৌঁছোতে ইতিমধ্যেই প্রাথমিক প্রস্তুতি শুরু করে দিয়েছে সে। প্রাথমিক বিভাগ থেকেই যাদবপুর বিদ্যাপীঠের ছাত্র সোহম। প্রতি ক্লাসেই প্রথম থেকে তৃতীয়ের মধ্যে থেকেছে সে। এই সাফল্য বাবা, মা এবং স্কুলশিক্ষকদের কৃতিত্ব বলে জানিয়েছে সোহম। একটানা পড়ার বইয়ে মুখ গুঁজে রাখা কখনওই ভাল লাগত না তার। পাঠ্য বই বাদে তার অন্যতম নেশা ছিল গল্পের বই পড়া। ঘণ্টা দুয়েক পরীক্ষার পড়া করেই একঘেয়েমি কাটাতে আধ ঘণ্টার জন্য টেনে নিত গল্পের বই। ইতিমধ্যে সত্যজিৎ রায়ের সব লেখা তার পড়া শেষ। শরৎচন্দ্র, বঙ্কিমচন্দ্রের অনেক লেখাই তার পড়া হয়ে গেছে। বিদেশি সাহিত্যিকদের লেখাও তার পছন্দ। নিজে না–‌খেললেও ভালবাসে ক্রিকেট খেলা দেখতে। একাদশ শ্রেণিতে সে পড়বে নিজের স্কুলেই। ‌‌

জনপ্রিয়

Back To Top