আজকালের প্রতিবেদন: ভলভোর মতো এবার অন্য বাসগুলিতেও ফ্রন্ট মিরর লাগাতে হবে। আপাতত কলকাতার বাসগুলির ক্ষেত্রে এই নিয়ম হলেও আগামীদিনে এটি গোটা রাজ্যজুড়েই চালু হবে। বৃহস্পতিবার কনফেডারেশন অফ ইন্ডিয়ান ইন্ডাস্ট্রিজ আয়োজিত ‘‌সেফটি সিম্পোসিয়াম অ্যান্ড এক্সপোজিশন’‌ শীর্ষক এক আলোচনাসভায় এ কথা জানান কলকাতা পুলিসের উপনগরপাল (পরিযান)‌ সুমিত কুমার। সেইসঙ্গে তিনি জানিয়েছেন, গার্ডেনরিচ রোড থেকে বিদ্যাসাগর সেতু পর্যন্ত পণ্য–পরিবহণের জন্য একটি উড়ালপুল গড়ার পরিকল্পনা করেছে কলকাতা পোর্ট ট্রাস্ট।  তিনি বলেন, ‘লালবাজারে আজ বন্দর কর্তৃপক্ষের সঙ্গে আমাদের একটি বৈঠক হয়েছে। সেখানেই এই উড়ালপুল তৈরির বিষয়টি নিয়ে আলোচনা হয়েছে।’‌ বন্দরের ডেপুটি চেয়ারম্যান এস বালাজি অরুণকুমারের সঙ্গে এই আলোচনা অনেক দূর এগিয়ে গেল। 
সুমিত কুমার বলেন, ‘‌বাসে ওঠা এবং নামার সময় দুর্ঘটনা ঘটছে চালকরা অনেক সময় রাস্তা ঠিকঠাক দেখতে পাচ্ছেন না বলে। সমাধানের জন্য বাসগুলিতে ফ্রন্ট মিরর লাগাতে হবে। পরিবহণ দপ্তরের সঙ্গে আমাদের আলোচনা হয়েছে। কলকাতায় শুরু হলেও পরে এটি গোটা রাজ্যেই হবে।’‌ 
উপনগরপাল জানিয়েছেন, হেলমেট ব্যবহারের ওপর যেমন জোর দেওয়া হচ্ছে এবং সেইসঙ্গে ক্যামেরার নজরদারি আরও বাড়ানো হচ্ছে। গাড়ির গতি নিয়ন্ত্রণ নিয়ে চলতি মাসেই ৪৬টা মামলা হয়েছে। দেখা যাচ্ছে একজন লোক ২০ বার নিয়ম ভেঙেছেন। আমরা আইনানুগ ব্যবস্থা নিচ্ছি।’‌
আলোচনাসভায় আইআইটি (‌খড়্গপুর)‌–এর প্রোফেসর ড.‌ ভার্গব মৈত্র বলেন, ‘‌প্রশিক্ষণ শেষে চালকদের লাইসেন্স দেওয়ার আগে সে কতটা ভাল গাড়ি চালায় সেটা দেখার পাশাপাশি দেখা উচিত গাড়ি চালাবার নিয়মগুলি জানে কিনা।’‌ কলকাতা পুলিসের প্রশংসা করে তিনি বলেন, ট্রাফিক ব্যবস্থাকে উন্নত করতে প্রচুর তথ্যপ্রযুক্তির সাহায্য নেওয়া হচ্ছে।‌‌‌‌‌

জনপ্রিয়

Back To Top