‌আজকালের প্রতিবেদন: মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জির নির্দেশ পাওয়ার পরেই ফড়েদের কালোবাজারি এবং শাকসবজি–‌সহ অন্যান্য দৈনন্দিন জিনিসের মূল্যবৃদ্ধি রুখতে শুক্রবার কলকাতা পুলিশের এনফোর্সমেন্ট ব্রাঞ্চ অভিযান শুরু করল। বৃহস্পতিবার নবান্নে কৃষি বিপণনের টাস্ক ফোর্সের বৈঠকে মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি বলেন, ‘‌বুলবুলের পর কিছু সংবাদ মাধ্যমে সবজির দাম বেড়ে যাবে বলে প্রচার করা হয়। এর ফলে ফড়েরা সুযোগ নিয়ে বাজারে শাকসবজির দাম বাড়িয়ে দেয়।’‌ মুখ্যমন্ত্রী জানিয়েছিলেন, ‘‌কিছু জেলায় ফসল, সবজি নষ্ট হয়েছে ঠিকই। কিন্তু, সব জেলায় তো হয়নি। যে জায়গায় বৃষ্টি হয়নি, সে জায়গায় তো ফসল রয়েছে। তাহলে কেন দাম বাড়বে?‌’‌ তিনি খুচরো বাজারে ফড়েদের দৌরাত্ম্য কমাতে পুলিশকে কড়া ব্যবস্থা নিতে বলেন। মুখ্যমন্ত্রীর নির্দেশের পরই এদিন সকালে ফুলবাগানে ভিআইপি বাজারে এনফোর্সমেন্ট ব্রাঞ্চের অফিসাররা অভিযান চালান। একজন ওসি–‌র নেতৃত্বে ৪টি টিম প্রতিদিনই এখন পুরসভার আয়ত্তাধীন প্রতিটি বাজারে অভিযান করবে। বিশেষত সবজির দাম একেক বাজারে একেক রকম কেন, তা জানতেই এই অভিযান। ইবি সূত্রে জানা গেছে, ইডি–‌র আধিকারিকরা বাজারে গিয়ে খুচরো আলু, পেঁয়াজের দাম জিজ্ঞেস করেন। এছাড়া খুচরো বিক্রেতারা কোথা থেকে সবজি কেনেন, সে বিষয়েও খোঁজখবর নেন। ইবি–‌র এক আধিকারিক জানান, কিছু অসাধু ব্যবসায়ী রয়েছে, যারা সুযোগ বুঝে যা খুশি দাম নিচ্ছে। গোটা বিষয়টাই দেখা হচ্ছে।‌ এদিন এনফোর্সমেন্ট ব্রাঞ্চের আধিকারিকরা ফুলবাগান ভিআইপি বাজারে যান। সেখানে নির্ধারিত মূল্যের তালিকার সঙ্গে চলতি বাজারদর মিলিয়ে দেখেন। দু–‌একজন ব্যবসায়ীর সঙ্গে সবজির দাম নিয়ে তর্ক বেধে যায়। ব্যবসায়ীরা জানান, তাদের কর্মীদের বহু টাকা মাইনে দিতে হয়। কেউ কেউ বলেন, পাইকারি বাজার থেকে জিনিস কিনে এনে বিক্রি করতে গাড়ি ভাড়া খরচ হয়। কেউবা বলেন, এখানে তাজা শাকসবজি বিক্রি হয় বলেই দাম বেশি। এনফোর্সমেন্ট ব্রাঞ্চের অফিসাররা বলেন, সরকারি নির্দেশ যা রয়েছে, তাই পালন করতে হবে। তাঁরা আবার বাজারদর খতিয়ে দেখতে আসবেন। একেক বাজারে সবজির ভিন্ন ভিন্ন দাম নিয়ে ইতিমধ্যেই সাধারণ মানুষের মধ্যে ক্ষোভ দেখা দিয়েছে। মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি নির্দেশ দিয়েছেন, সবজির বাজারদর যাতে স্বাভাবিক অবস্থায় ফেরে তা দেখতে। এ ব্যাপারে কলকাতা পুলিশকেও নজরদারি চালাতে বলা হয়েছে। আজ শনিবার ও রবিবার কলকাতার বড় বাজারগুলিতে সবজির দর কী অবস্থায়, তা দেখবে এনফোর্সমেন্ট ও পুলিশ।‌

রাসমণি বাজার ঘুরে দেখছেন টাস্ক ফার্সোরে অফিসারেরা। শুক্রবার। ছবি: বিজয় সেনগুপ্ত

জনপ্রিয়

Back To Top