আজকাল ওয়েবডেস্ক: সপ্তাহ দুয়েক আগেই শহরের তিনটি এটিএম থেকে লক্ষ-লক্ষ টাকা গায়েব হয়েছিল। আর সেই এটিএম জালিয়াতি কাণ্ডেই নয়া তথ্য। জালিয়াতির সঙ্গে যুক্ত রয়েছেন মনোজ গুপ্তা। এর আগেও তিনি এটিএম থেকে টাকা লুঠের অভিযোগে গ্রেপ্তার হয়েছিলেন। 

পুলিশ সূত্রে খবর, বউবাজারের এটিএম-এর সিসিটিভিতে দেখা গিয়েছে মনোজকে। ১৪ মে ৩ ঘণ্টায় মোট ১২৬ বার ট্রানজাকশন করে ২৫ লক্ষ টাকারও বেশি তুলে নেয় অভিযুক্ত। টাওয়ার লোকেশন ট্র্যাক করে দেখা যায় ওই সময় মনোজ বউবাজারেই ছিল, এমনটাই জানিয়েছে তদন্তকারীরা। 

এই এটিএম লুঠ কাণ্ডে মোট চারজনকে গ্রেপ্তার করেছিল লালবাজারের গোয়েন্দা বিভাগ। দু’জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছিল কলকাতা থেকে এবং বাকি দু'জনকে গ্রেফতার করা হয়েছিল সুরাট থেকে। কলকাতা থেকে গ্রেপ্তার করা হয়েছিল বিশ্বদ্বীপ রাউত ও আব্দুল সইফুল মণ্ডলকে। অন্যদিকে, সুরাট থেকে গ্রেপ্তার করা হয়েছিল মনোজ গুপ্তা এবং নবীন গুপ্তাকে। 

মনোজ এবং নবীন দিল্লির ফতেপুরের বাসিন্দা বলে জানতে পেরেছেন গোয়েন্দারা। যেই অ্যাকাউন্ট থেকে টাকা তোলা হয়েছিল সেই অ্যাকাউন্ট চেক করেই পাকড়াও করা হয় এই অভিযুক্তদের। কলকাতা থেকে যে দু'জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে তাদের অ্যাকাউন্টে টাকা রাখতেন দিল্লিবাসী ওই দু’জন। আপাতত ১৪ জুন অবধি জেল হেফাজতের নির্দেশ দিয়েছে আদালত। গোটা ঘটনার সঙ্গে আর কেউ জড়িত কিনা কিংবা এর জাল কত দূর বিস্তৃত তা জানতে তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ।

জনপ্রিয়

Back To Top