আজকালের প্রতিবেদন: নারী–নির্যাতন রুখতে আরও কঠোর হচ্ছে রাজ্য সরকার। শুক্রবার মেয়ো রোডে সংহতি দিবস উপলক্ষে বক্তব্য পেশ করতে গিয়ে মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি বলেন, ‘‌উন্নাওয়ের ঘটনা আমার হৃদয়কে নাড়া দিয়েছে। এটা খুবই স্পর্শকাতর বিষয়। মেয়েটির শরীরের ৯০ শতাংশ পুড়ে গেছে। তা নিয়ে এক কিলোমিটার দৌড়ে যায়। এই ধরনের ঘটনা আমরা সমর্থন করি না। বাংলায় ৮৫টি ফাস্ট ট্র‌্যাক কোর্ট রয়েছে। এর মধ্যে মহিলারাও আছেন।’‌ হায়দরাবাদের ঘটনার প্রসঙ্গ তোলেন। মমতা বলেন, ‘‌পুলিশকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে, এই ধরনের ঘটনা ঘটলে দ্রুত গ্রেপ্তার করে ৩ থেকে ১০ দিনের মধ্যে চার্জশিট দিতে হবে ও অভিযুক্তদের বিচার শুরু করতে হবে। আইন নিজের হাতে তুলে নেওয়া যাবে না। পুলিশ তার কাজ করবে। বিচারপতি নিজের মতো কাজ করবেন।’‌ পুলিশের গাফিলতির অভিযোগ উঠলে, সরকার যে কড়া হাতে তার মোকাবিলা করবে, সে বার্তাও দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী। তিনি সাফ জানিয়ে দিয়েছেন, ‘‌গ্রেপ্তার যাঁরা করবেন না, তাঁদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’
এদিন দক্ষিণ দিনাজপুরের একটি ধর্ষণ–কাণ্ডের ঘটনার উল্লেখ করে মুখ্যমন্ত্রী বলেন, ‘‌৭২ ঘণ্টার মধ্যেই পুলিশ চার্জশিট দিয়েছিল। কখনও কখনও কিছু ঘটে যায়। ঘটলেও, আমরা তা সমর্থন করি না। কিন্তু আইনকেও শক্তিশালী করা উচিত।’‌ মালদার ঘটনার উল্লেখ করে মমতা বলেন, ‘‌বিজেপির এক মন্ত্রী না জেনে মন্তব্য করে দিচ্ছেন। মালদায় ধর্ষণ হয়েছে কিনা ময়নাতদন্তের রিপোর্ট পাওয়ার আগে বলা যাবে না। পুলিশ বিষয়টি দেখছে।’‌
মমতা এদিন বলেন, ‘‌কোনও মহিলার ওপর অত্যাচার আমি সহ্য করি না।’‌‌‌

 

 ছবি: তপন মুখার্জি

জনপ্রিয়

Back To Top