আজকাল ওয়েবডেস্ক: আগামী পয়লা জুলাই থেকে মেট্রো রেল চলতে পারে শহরে। শুক্রবার বিকেলে নবান্নে সাংবাদিক বৈঠকে এই ইঙ্গিতই দিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি। এদিন মুখ্যমন্ত্রী বলেন, রাজ্য সরকার কলকাতা মেট্রো রেল কর্তৃপক্ষের সঙ্গে কথা বলেছে। মেট্রোকে বলা হয়েছে যতগুলি আসন, ততজন যাত্রীই যদি নেওয়া হয় এবং আসন নিয়মিত স্যানিটাইজ করা হয়, তাহলে পয়লা জুলাই থেকে মেট্রো রেল পরিষেবা চালু হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে কলকাতায়। তার আগে এব্যাপারে মেট্রো রেলের সঙ্গে বৈঠকে বসবে পুলিশ প্রশাসন। তবে মেট্রোর যাত্রীদের প্রতিও ধৈর্য ধরার আবেদন জানিয়েছেন তিনি। একইসঙ্গে নাম না করে বিজেপিকে কটাক্ষ করে মমতা বলেছেন, এজন্য যখনতখন ভাঙচুর, পথ অবরোধ, বিক্ষোভ যেন না দেখায় কেউ।
রাজ্যে যে ৬০০০ বেসরকারি বাস–মিনিবাস চলে তার মধ্যে এখন ২৫০০ চলছে। ফলে প্রতিদিনই যাত্রী দুর্ভোগের খবর মিলছে। সমস্যা মেটাতে আগামী পয়লা জুলাই থেকে রাজ্যে সব কটি বাস–মিনিবাসকেই পথে নামাতে বলেছেন মুখ্যমন্ত্রী। আমজনতার দিকে তাকিয়ে ভাড়া না বাড়ানোর কথা ঘোষণা করেছেন তিনি। তবে ক্রমাগত পেট্রো পণ্যের মূল্যবৃদ্ধি হওয়ায় একদিকে যেমন কেন্দ্রকে ঠুকেছেন। আরেকদিকে তেমনই ৬০০০ বেসরকারি বাস–মিনিবাস মালিকদের এই ইস্যুতে আর্থিক সাহায্যের ঘোষণা করে মমতা বলেছেন,  আগামী তিন মাস যাবৎ বাস পিছু ১৫০০০ টাকা করে দেওয়া হবে। এজন্য রাজ্যকে এই তিন মাসে ২৭ কোটি টাকা ভর্তুকি দিতে হবে। তবে পেট্রল, ডিজেলের আকাশছোঁয়া দাম, স্যানিটাইজেশনের খরচ বাবদই এই অর্থ রাজ্যের তরফে বাস–মিনিবাসগুলিকে দেওয়া হবে বলে জানিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী। মমতা আরও বলেছেন, বেসরকারি বাস–মিনিবাস চালকদেরও স্বাস্থ্যসাথী বিমার আওতায় আনা হচ্ছে। এছাড়া যাত্রীদের সুবিধার্থে পয়লা জুলাই থেকেই রাজ্যে আরও ৫০০ সরকারি বাসও পথে নামতে চলেছে।
এদিনই বেসরকারি স্কুলগুলিকে অতিরিক্ত ফি না বাড়াতেও বলেছেন মুখ্যমন্ত্রী। তিনি বলেন, অনেক ছাত্রছাত্রীদের অভিভাবকরাই বেসরকারি সংস্থায় কাজ করেন, এবং বহু বেসরকারি কোম্পানিতে এখন বেতন নিয়মিত হচ্ছে না। সেকথা মাথায় রাখতে স্কুল কর্তৃপক্ষগুলিকে পরামর্শ দিয়ে মমতা বলেন, যেহেতু গত তিন মাস স্কুলের লাইব্রেরি, কম্পিউটার ক্লাসের মতো অতিরিক্ত বিষয়গুলি পুরোপুরি বন্ধ ছিল, তাই কোনও অতিরিক্ত ফি যেন না চার্জ করা হয়। মমতা আরও বলেছেন, রাজ্যে জারি করা আগামী ৩১ জুলাই পর্যন্ত লকডাউন শিথিল থাকবে প্রতিদিন সকাল পাঁচটা থেকে রাত ১০টা পর্যন্ত। রাজ্য সরকার পিপিই কিটের দাম ধার্য করেছে , কিট প্রতি ২৫৫০ টাকা করে। এদিনও কেন্দ্রের বিরুদ্ধে তোপ দেবে মুখ্যমন্ত্রী ক্ষোভপ্রকাশ করে বলেন, বকেয়া ৫৩,০০০ কোটি টাকার অর্থ সাহায্য এখনও রাজ্য। দেশের প্রতিটি রাজ্যের জন্য কেন্দ্রীয় সরকারের একই নীতি হওয়া উচিত, যা তারা মানছে না।
ছবি:‌ এএনআই

জনপ্রিয়

Back To Top